বিশেষ প্রতিনিধি:স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও চোখের চিকিৎসার জন্য দুবাই গেলেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। আজ বুধবার সন্ধ্যা ৬টা ৫৫ মিনিটে বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে ঢাকা ত্যাগ করেন তিনি। রাষ্ট্রপতির সহকারী প্রেস সচিব মো. ইমরানুল হাসান বিষয়টি গণমাধ্যমে নিশ্চিত করেন। সফর শেষে ২২ অক্টোবর রাষ্ট্রপতির দেশে ফেরার কথা রয়েছে বলে জানান প্রেস সচিব।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের বৃহত্তম শহর এবং পশ্চিম এশিয়ার অন্যতম ব্যবসা কেন্দ্র দুবাইয়ের আমেরিকান হাসপাতালে রাষ্ট্রপ্রধানের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার কথা রয়েছে। বিদেশে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের নয় দিনের চিকিৎসাকালে তাঁর স্ত্রী রাশিদা খানম ও বঙ্গভবনের সংশ্লিষ্ট সচিবরা তাঁর সাথে থাকবেন।

কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক, মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম, তিন বাহিনীর প্রধানগণ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব ড. আহমেদ কায়কাউস এবং ঢাকায় সংযুক্ত আরব আমিরাত দূতাবাসের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স আবদুল্লাহ আলী আল হামুদি এবং সংশ্লিষ্ট বেসামরিক ও সামরিক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাগণ বিমানবন্দরের ভিভিআইপি লাউঞ্জে রাষ্ট্রপতিকে বিদায় জানান।

সুচি অনুযায়ী আগামী ২২ অক্টোবর তাঁর দেশে ফেরার কথা। এর আগে ৭৬ বছর বয়সী রাষ্ট্রপতি হামিদ চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে লন্ডনে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করান। আবদুল হামিদ দীর্ঘদিন ধরে গ্লুকোমাতে ভুগছেন। তিনি জাতীয় সংসদের স্পিকার থাকাকালীন লন্ডনে নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষা করাতেন। কিন্তু চলমান কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে যথাসময়ে তা করা সম্ভব হয়নি।

হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ভিভিআইপি টার্মিনালে রাষ্ট্রপতিকে বিদায় জানান কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক। এ ছাড়া মন্ত্রিপরিষদ সচিব, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব, বাংলাদেশে নিযুক্ত সংযুক্ত আরব আমিরাতের শার্জ দ্য আফেয়ার্স, তিন বাহিনীর প্রধানসহ সামরিক-বেসামরিক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।