সরকারী বিধিনিষেধ বাস্তবায়নে প্রশাসনের সাথে সমন্বিতভাবে সর্বস্তরের সচেতন ব্যক্তিদের দুর্যোগ মোকাবেলায় সামাজিকভাবে আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে হবে। করোনা সংক্রমন থেকে নিজেরদের বাঁচাতে সরকারের লকডাউন বাস্তবায়ন সময়ের দাবি। তিনি প্রশাসনকে বেকার হয়ে যওয়া কর্মজীবিদের প্রধানমন্ত্রীর উপহারের খাদ্য সামগ্রী সুষ্ঠ বিতরণের তাগিদ দেন।  বুধবার ২৮ জুলাই বেলা সাড়ে ১০ টায় জীবননগর উপজেলার করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন।
জীবননগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফুল ইসলাম রাসেলের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে মহেশপুর ৫৮ বিজিবি ব্যাটলিয়ানের অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল কামরুল হাসান বলেন, সরকারের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে প্রশাসনকে সহযোগিতায় বিজিবি সদস্যরা মাঠে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। করোনার মরন ছোবল থেকে বাঁচতে সরকারি বিধিনিষেধ মানতে নিজেদের সদিচ্ছা থাকতে হবে। সকলের  সমন্বিত প্রচেষ্টায় গোটা জাতি এ মহামারি থেকে রক্ষা পাবে অচিরে।
জীবননগর উপজেলা পরিষদে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, জীবননগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী হাফিজুর রহমান, পৌরসভার মেয়র রফিকুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি গোলাম মর্তুজা, সাধারন সম্পাদক নজরুল ইসলাম, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আবু মোঃ আব্দুল লতিফ অমল, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম ঈশা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েশা সুলতানা লাকী, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ সেলিমা আখতার, জীবননগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল ইসলাম। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন, মনোহরপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন খাঁন, রায়পুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ শাহ, প্রেসক্লাব সম্পাদক কাজী সামসুর রহমান চঞ্চল, সাংবাদিক সালাউদ্দিন কাজল, মিঠুন মাহমুদ প্রমুখ। এসময় উপস্থিত ছিলেন, বাঁকা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের প্রধান, আন্দুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শেখ শফিকুল ইসলাম মুক্তার, হাসাদহ ইউনিয়ন চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম বিশ্বাস, সাংবাদিক সমিতির সভাপতি জি এ জাহিদ বাবু, সম্পাদক জামাল হোসেন খোকন সহ সরকারি কর্মকর্তা বৃন্দ।