চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী যুবলীগের জাতীয় শোক দিবসে আলোচনা ও দোয়া মহাফিলে ছেলুন জোয়ার্দ্দার এমপি
শোক দিবসে পাকিস্তানি দোসরদের প্রতিহত করার শপথ নিতে হবেঃছেলুন জোয়ার্দ্দার এমপি
স্টাফ রিপোর্টার:চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগ ও তার সহযোগী অঙ্গসংগঠন মাসব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে তারিই ধারাবাহিকতায় ১৫ই আগষ্ট জাতীয় শোক দিবস ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী যুবলীগের আয়োজনে আলোচনা সভা ও দোয়া মহাফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।
গতকাল বুধবার বিকাল সাড়ে ৪টার সময় চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে  আলোচনা সভা ও দোয়া মহাফিলে  চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী  যুবলীগের সাবেক আহবায়ক আরেফিন আলম রঞ্জু’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি  চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জাতীয় সংসদের সাবেক হুইপ বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন এমপি।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন এমপি বলেন,জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকীতে পাকিস্তানি দোসরদের প্রতিহত করে সোনার বাংলা গড়ার শপথ নিতে হবে।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছেন। শেখ হাসিনাকে হত্যার জন্য ১৯ বার চেষ্টা করা হয়েছে। তাই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর শাহাদাৎ বার্ষিকীতে আওয়ামী লীগের প্রতিটি নেতা-কর্মীকে পাকিস্তানি দোসরদের প্রতিহত করার শপথ নিয়ে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা করার অঙ্গিকার করতে হবে। তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে পাকিস্তানি দোসররা এদেশ থেকে আওয়ামী লীগের চিহ্ন মুছে ফেলার চেষ্টা করেছিল। জিয়াউর রহমান পাকিস্তানিদের এজেন্ট হিসেবে বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডের সাথে জড়িতদের রাজনৈতিক ও সামাজিকভাবে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন।
সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন এমপি বলেন,বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা নিজের জীবন বাজি রেখে যেমন বাংলাদেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করে যাচ্ছেন, তেমনি বঙ্গবন্ধু হত্যা, যুদ্ধাপরাধীর মঞ্চে যারা ছিলেন, তাদের বিচার করে জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করেছেন। বঙ্গবন্ধুর পালাতক খুনিদের দেশের ফিরিয়ে এনে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করতে হবে।
তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যার নেপথ্যের কুশীলব যারা, তাদের তদন্তের আওতায় আনতে হবে। নতুন প্রজন্মের কাছে তাদের মুখোশ উন্মোচন করতে হবে। স্বাধীনতার পরাজিত শক্তির কুশলবরা পাকিস্তানের এজেন্ডা বাস্তবায়নের জন্য ঘৃণ্য বর্বরোচিত হামলা করে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করে।
চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুর রশিদ এর পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সাবেক পৌর মেয়র রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খুস্তার জামিল, সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্সি আলমগীর হান্নান ও মুফতি মাসুদুজ্জামান লিটু,দপ্তর সম্পাদক এ্যাড: আবু তালেব, উপ-প্রচার সম্পাদক শওকত আলি বিশ্বাস, পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আলা উদ্দিন হেলা, জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি আফজালুল হক বিশ্বাস, মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদিকা নুরুন্নাহার কাকলী, জাতীয় মহিলা সংস্থা চুয়াডাঙ্গার চেয়ারম্যান নাবিলা রুকসানা ছন্দা, সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহাজাদী মিলি,  চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাইমেন হাসান জোয়ার্দ্দার অনিক, সহ-সভাপতি মো: শাহাবুল হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক যুব লীগ নেতা আব্দুল কাদের, যুবলীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম আসমান, টুটুল, মিলু,মিরাজুল ইসলাম কাবা,জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রেজাউল করিম সহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।
১৫ই আগষ্টে  জাতির পিতা সহ তার পরিবারের যে সকল ব্যাক্তিরা শাহাদাৎ বরণ করেছেন এবং সকল শহীদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত দোয়া অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুদউজ্জামান লিটু।