চুয়াডাঙ্গার বাগানপাড়ার একটি বাড়িতে জেলা প্রশাসন ও র‌্যাবের যৌথ অভিযান

বিপুল পরিমান নকল প্রশাধনী জব্দ:ভ্রাম্যমাণ আদালতে গুদাম মালিককে ২ লাখ টাকা জরিমানা:গুদাম সিলগালা

আহসান আলম: চুয়াডাঙ্গার বাগানপাড়ার একটি বাড়ির গুদামে অভিযান চালিয়েছে জেলা প্রশাসন ও ঝিনাইদহ র‌্যাব-৬’র একটি টিম। অভিযানে ওই বাড়ির গুদাম থেকে বিপুল পরিমান নকল প্রশাধনী সামগ্রী জব্দ করেছে। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে গুদাম মালিক ও নকল প্রশাধনী সামগ্রীর ডিলার মোস্তফাকে ২ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সেই সাথে নকল প্রশাধনী রাখা গুদাম সিলগালা করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১ টা থেকে ৫ টা পর্যন্ত ভ্যাজাল বিরোধী এ অভিযান চালানো হয়।


ভ্রাম্যমাণ আদালত সুত্রে জানা যায়, আলমডাঙ্গা উপজেলার রিকাত আলীর ছেলে চুয়াডাঙ্গা শহরের বাগানপাড়ায় একটি বাড়ি ভাড়া নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে নকল প্রশাধনীর ব্যবসা করে আসছে। গোপণ সংবাদের ভিত্তিতে ঝিনাইদহ র‌্যাব-৬’র একটি টিম চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসন ও ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সাথে নিয়ে বৃহস্পতিবার বেলা ১ টার দিকে প্রথমে অভিযান চালায় চুয়াডাঙ্গা বড়বাজার শহীদ হাসান চত্বরে মুন সুপার মার্কেটে অবস্থিত নকল প্রশাদনী বিক্রেতা মোস্তফার অভি অনিক এন্টারপ্রাইজে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করে। মোস্তফার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে শহরের বাগানপাড়ায় তার ভাড়া বাড়িতে অভিযান চালানো হয়। এ সময় বাড়ির গুদাম থেকে জব্দ করা হয় বিপুল পরিমান নকল প্রশাধনী। পরে নকল প্রশাধনী মজুত রাখার অপরাধে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এর ৪১ ধারায় গুদাম মালিক মোস্তফাকে ২ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ডের আদেশ দেয়া হয়। সেই সাথে গুদাম সিলগালা করা হয়।
ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক জেলা প্রশাসনের সহকারি কমিশনার হাবিবুর রহমান জানান, চুয়াডাঙ্গা বড়বাজার শহীদ হাসান চত্বরে মুন সুপার মার্কেটের অভি অনিক এন্টারপ্রাইজের মালিক মোস্তফা দীর্ঘদিন ধরে নকল প্রশাধনীর ব্যবসা করে আসছেন। আমরা তার বাড়ির গুদামে অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমান নকল প্রশাধনী জব্দ করি। তিনি ওই সকল পণ্য কুষ্টিয়ার চাঁদের পরী কসমেটিক্স, ঢাকার তাকওয়া এন্টারপ্রাইজ, জিআর এন্টারপ্রাইজ, চুয়াডাঙ্গার কলিন্স কসমেটিক্সের কাছ থেকে নকল পণ্য আমদানি করে চুয়াডাঙ্গা জেলার বিভিন্ন বাজারে বিক্রি করতেন। তিনি যে প্রনিষ্ঠান থেকে ওইসব পণ্য আমদানি করতেন কয়েকমাস আগে ওই প্রতিষ্ঠানগুলো সিলগালা করা হয়।
অভিযানের সময় উপস্থিত ছিলেন ঝিনাইদহ র‌্যাব-৬’র কমান্ডার মেজর মোহাম্মদ শরীফুল আহসান, র‌্যাবের এএসপি আমান বান্না, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সহকারি পরিচালক সজল আহমেদসহ র‌্যাবের অন্যান্য অফিসারগণ।