দামুড়হুদায় ম্লীলতাহানির অভিযোগে আটক লম্পট বকতিয়ারকে জেলহাজতে প্রেরণ

দামুড়হুদা অফিস : দামুড়হুদার দলকা লক্ষিপুরে বাড়িতে ঢুকে পরস্ত্রীকে জোরপূর্বক শ্লীলতাহানির চেষ্টার অভিযোগে বকতিয়ার হোসেন (৩৫) নামের এক লম্পটকে আটক করেছে পুলিশ। আটক বকতিয়ার দামুড়হুদা উপজেলার গোপালপুর গ্রামের নুরুল হোসেনের ছেলে। এ ঘটনায় মেয়ের পিতা বাদী হয়ে অভিযুক্ত বকতিয়ারসহ রাজন (২২) ও কাজল ২৫) নামের তার অপর দুই সহযোগিকে আসামি করে দামুড়হুদা মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন। মামলার পর অভিযুক্ত লম্পট দুই সন্তানের জনক বকতিয়ারকে সোমবার রাতে আটক করেছে পুলিশ। তাকে গতকাল মঙ্গলবার আদালতে সোপর্দ করা হলে তাকে জেলহাজতে পাঠিয়েছেন আদালতের বিজ্ঞ বিচারক।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার দলকা লক্ষিপুর গ্রামের হাফিজুল ইসলামের মেয়ে আখি খাতুনকে (২২) দির্ঘদিন ধরে বিয়ের কথা বলে উত্যক্ত করতো একই উপজেলার গোপালপুর গ্রামের নুরুল হোসেনের ছেলে দুই সন্তানের জনক লম্পট বকতিয়ার হোসেন। তার হাত থেকে রক্ষা করতে মেয়েকে বছর খানেক আগে চুয়াডাঙ্গা জেলা সদরের আলুকদিয়া গ্রামে পারিবারিকভাবে বিয়ে দেয়া হয়। বিয়ের পরও থেমে থাকেনি লম্পট বকতিয়ারের পাগলামি। কিছুদিন আগে অভিযুক্ত বকতিয়ার মেয়ের স্বামীর বাড়ি আলুকদিয়ায় যায় এবং গৃহবধু আখির স্বামীর সাথে হাতাহাতি করে। ওই ঘটনার কয়েকদিন পর আখি গত ৫ মার্চ পিতার বাড়ি লক্ষিপুরে বেড়াতে আসে। খবর পেয়ে লম্পট অভিযুক্ত বকতিয়ার ৬ মার্চ সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে তার অপর দুই সহযোগি রাজন ও কাজলকে সাথে নিয়ে দলকা লক্ষিপুরে আসে এবং জোরপূর্বক বাড়িতে ঢুকে আখির দেহের ষ্পর্শকারতস্থানে হাত দিয়ে শ্লীলতাহানি ঘটায়। এ সময় আখি চিৎকার চেচামেচি শুরু করলে প্রতিবেশীরা এসে লম্পট বকতিয়ারকে আটক করে। এ সময় পালিয়ে যেতে সক্ষম হয় তার অপর দুই সহযোগি রাজন ও কাজল। এ ঘটনায় মেয়ের পিতা ওই দিনই অভিযুক্ত বকতিয়ারসহ রাজনও কাজলকে আসামি করে দামুড়হুদা মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা দামুড়হুদা মডেল থানার এসআই বাকী বিল্লাহ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অভিযুক্ত লম্পট দুই সন্তানের জনক বকতিয়ারকে সোমবার রাতে আটক করা হয়। তাকে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে আদালতে সোপর্দ করা হলে আদালতের বিজ্ঞ বিচারক তাকে জেলহাজতে প্রেরণের আদেশ দেন। পলাতক অপর দুই আসামিকেও গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যহত আছে বলেও জানান তিনি।