স্টাফ রিপোর্টারঃ দামুড়হুদায় ওয়ারিশ সূত্রে পাওয়া ও ক্রয়কৃত সম্পত্তির জমিতে লাগানো ধানের চারা কর্তন করেছেন ভূয়া দলিল প্রাপ্ত দামুড়হুদা দশমি স্টার ক্লাব পাড়ার মৃত শরিফ মালিতার স্ত্রী রোজিনা খাতুন  সহ তার ভারাটিয়া অঙ্গাতোনামা ২-৩ জন।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, দামুড়হুদা উপজেলার সদরে দশমি পাড়ার মৃত আজিজুল মালিতার মৃত্যুর পর তার সম্পত্তির বন্টন নামার রেকর্ড মূলে মালিক হন তার  স্ত্রী সহ ৩ পুত্র  ও ২ কন্যা । ওয়ারিশ সূত্র  অনুযায়ী তার দুই কণ্য সাহিদা খাতুন(৬০) ও সুফিয়া খাতুন (৫২)দামুড়হুদা’র হাউলি ইউনিয়নে হাউলি মৌজার কলেজ মাঠের  আর এস ৪৯ নং খতিয়ানভূক্ত ১০৪১ দাগে দুই  বোনের প্রাপ্য হিস্যা অনুযায়ী. ১৩৩৬ একর সম্পতি সূত্রে প্রাপ্ত হয়ে নামজারি মামলা করেন।আদেশ অনুযায়ী নতুন হোল্ডিং সহ পৃথক খতিয়ান প্রস্তুত করেন মৃত. আজিজুল মালিতার  দুই  এতিম কন্যদ্বয়।
এদিকে মৃত. আজিজুল মালিতার ওয়ারিশের তিন পুত্রের   মধ্যে  দুই পুত্র মৃত. আঃ মান্নান ও রফিকুল ইসলাম তাদের অংশের জমি দামুড়হুদার হাউলি ইউনিয়নের নতুন হাউলি গ্রামের ইদ্রিস আলী  মাস্টার এর নিকট তাদের অংশ’র হিস্যা অনুযায়ী.১৩৩৬ একর জমি২০০২ সালে দলিল মূলে বিক্রি করেন ইদ্রিস আলী  মাস্টারের নিকট। এবং তাদের প্রাপ্ত জমিতে চাষ দিয়ে ধার রোপন করেন তারা।
মৃত আজিজুল মালিতার দুই কন্যার নিকট জমি না ক্রয় করলেও এতিম  দুই বোনের সম্পত্তি অপর শরীকদের নিকট ক্রয় করে ভূয়া দলিলে ভোগ দখলে বিভিন্ন সময়ে মৃত. আজিজ মালিতার দু কন্যা সহ ইদ্রিস আলী  মাস্টার এর সরিকদের  বিভিন্ন সময়ে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে  বাঁধা বিগ্ন সৃষ্টি করে আসছেন মৃত.  শরীফ মালিতার স্ত্রী রোজিনা খাতুন। জমির প্রকৃতি মালিকরা তাদের প্রত্যেকের জমিতে চাষ দিয়ে ধানের চার রোপন করেন। লাগালো  চারা গাছ  বেড়ে এক হাত সমান পরিনত হওয়ার পর
গত ৩০ জুলাই ভূয়া দলিলের মুলে  মৃত.  শরিফ মালিতার স্ত্রী রোজিনা খাতুন সহ তার ভাড়াটিয়াদের মাধ্যমে রোপনকৃত তিন জন মালিকের  মোট  ১৬  কাটা জমিতে লাগালো ধানের সমস্ত চারা গত বৃহস্পতিবার রাতের আধারে  হাসু দিয়ে কেটে ক্ষতি সাধন করেন।
পরবর্তীতে সকাল ১০ টার দিকে জমির মালিক সাহিদা খাতুনের পুত্র  তানজীর ফয়সাল ও ইদ্রিস আলী  মাস্টার এর পুত্র মন্জুর কাদির লোকমুখে সংবাদ পান তাদের লাগালো ধানের সকল চারা কাটিয়ে দেন।ঘটনাস্থলে গিয়ে জমির মালিক গণ  উভয়ই উপস্থিত হয়ে দেখন সাহিদা খাতুন ও তার বোনের লাগানো সহ ইদ্রিস আলী মাষ্টারের পুত্রের
জমিতে লাগানো সকল ধানের চারা কর্তন করে  পানির উপরে ভাসছে  এবং সীমানা প্রাচীর  ভেঙে ফেলেছে। এতে উভয় জমির মালিকে ১০ হাজার টাকা ক্ষতি সাধন হয়েছে।এভাবে জমির প্রকৃতি মালিকগণ স্বত্ব দখলীয় জমিতে রোপন করা ধানের চারা কেটে ক্ষতি সাধন করায় জন্য যে কোন সময় ঘটতে পারেন রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ।
এ বিষয়ে জমির মালিক মৃত. আজিজুল মালিতার বড় কন্যা সাহিদা খাতুন বলেন,আমার পিতার মৃত্যুর পর  ওয়ারিশ সূত্রে আমি ও আমার বোন এ সম্পত্তির মালিক  হয়। জমিতে আমার দু’বোন ধান রোপন করি। ধার বড় হয়ে এক হাত লম্বা হয়ে যাওয়ার পর তা রোজিনা খাতুন সহ  তার ভাড়াটিয়া কেটে পানিতে ভাসিয়ে দিয়েছে।
এ বিষয়ে ইদ্রিস মাস্টার এর ছেলে মনজুর কাদির  বলেন, মৃত. আজিজুল মালিতার ওয়ারিশগণের মধ্যে  তার দুই ছেলে  মৃত.আঃ মান্নান ও রফিকুল ইসলাম এর কাছ থেকে  আমর পিতা জমি ক্রয় করেন।ক্রয়কৃত জমিতে ধান লাগালে তা কেটে নেন মৃত শরিফ মালিতার স্ত্রী সহ তার ভাড়াটিয়ারা।এ বিষয়ে দামুড়হুদা মডেল থানার উভয়পক্ষের  লিখিত অভিযোগ করা  হয়েছে বলে জানা গেছে।