দর্শনা স্থল ও শুল্ক বন্দর পরিদর্শনে রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান-মুনিম :
স্থল বন্দরের প্রস্তাবিত জায়গা পরিদর্শনে সন্তোস প্রকাশ 

দর্শনা অফিসঃ দর্শনা স্থল শুল্ক ষ্টেশন ও বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত পরিদর্শন করলেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান আবু মোঃ রহমাতুল মুনিম। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে দর্শনা স্থল শুল্ক ষ্টেশন এবং কাষ্টমসে্ ভ্যাট ট্রেনিং একাডেমির আঞ্চলিক কার্যালয়ের জন্য ১শ বিঘা প্রস্তাবিত জায়গা পরিদর্শন করেন এনবিআর সিনিয়ার সচিব অভ্যান্তরিন সম্পদ বিভাগ ও চেয়ারম্যান সহ ১১ সদস্যর একটি টিম। টিমের অন্য সদস্যরা, রাজস্ব বোর্ডের সদস্য আলমগীর হোসেন, মাসুদ সাদিক, সৈয়দ গোলাম কিবরিয়া, কমিশনার (যশোর) জাকির হোসেন, দর্শনা কাষ্টমসে্র উপ-কমিশনার সাফায়েত হোসেন, দামুড়হুদা উপজেলা নিবার্হী অফিসার দিলারা রহমান, উপজেলা চেয়ারম্যান আলী মুনছুর বাবু, দর্শনা থানার অফিসার্স ইনচার্জ মাহাব্বুর রহমান কাজলসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ। অতিথিরা দর্শনা কাষ্টমস্ শুল্ক ষ্টেশন ও দর্শনা কাষ্টমস্ ইমিগ্রেশন চেকপোষ্ট পরিদর্শন করেন। তিনি দর্শনা জয়নগর প্রস্তাবিত স্থল বন্দরের ১শ বিঘা জমির জায়গার মধ্যে সীমান্তের ৭৬নং মেইন পিলারের পার্শ্বে ৭৫বিঘা ও দর্শনা আন্তর্জাতিক সম্মেলন কক্ষের নিকটবর্তী বিজিবি ক্যাম্পের বামপার্শ্বে ২৫ বিঘা জমি পরিদর্শন করেন। ১৯৬০ সালের ১৫ই মে মাসে দর্শনা কষ্টমস প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর দীর্ঘ ৮১ বছর মেরামত না করায় ভবন গুলি জরাজীর্ন হয়ে পড়েছে। ফলে কাষ্টমস্ ভবনগুলি পরিদর্শন করেন এবং জরাজীর্ণ ভবনগুলো নিমাণ করার আশ্বাস দেন। এছাড়া দর্শনা কাষ্টমস্ ইমিগ্রেশন চেকপোষ্ট পরিদর্শন কালে তিনি বলেন, আমি দৈনিন্দন কাজের অংশ হিসাবে এ পরিদর্শনে এসেছি। পরিদর্শন শেষে আমি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়ে একটি প্রতিবেদন জমা দেবো। তিনি দর্শনা ও ভারতের গেদে সীমান্তে স্থল বন্দর করারও আশ্বাস দেন। এছাড়া তিনি দর্শনা রশিক শাহ মাজারের নিকট থেকে দর্শনা জয়নগর চেকপোষ্ট পর্যন্ত ফোর লেন সড়ক নিমার্নের কাজ অতিদ্রুত করার আশ্বাস দেন। এরপর তিনি বেলা ৩টার দিকে মেহেরপুর বৈদ্যনাথতলা স্থল শুস্ক ষ্টেশন পরিদর্শনের জন্য দর্শনা ছেড়ে মেহেরপুরের উদ্যোশে রওনা দেন। এছাড়া দর্শনা কেরুজ অতিথি ভবনে পৌছালে রাজস্ব বোর্ডের চেয়াম্যানকে কেরুজ চিনিকলের পক্ষ থেকে ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ আবু সাঈদ ও উপ-মহাব্যবস্থাপক (প্রশাসন) শেখ শাহাব উদ্দিন অতিথিকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।