দর্শনা অফিসঃ দর্শনার বড়বলদিয়ায় জমিজমা সংক্রান্ত বিষয়কে কেন্দ্র করে  রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে
ঘর জামাইয়ের বাঁশের আঘাতে ঘটনাস্থলেই শফিকুল ইসলাম শফিক (৪৫) নামের দুই সন্তানের জনকের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় রক্তাক্ত জখম হয়ে আহত হয়েছে উভয় পক্ষের ২জন। ঘটনার খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছায় দর্শনা থানা পুলিশ। গতকাল শুক্রবার সন্ধার দিকে দর্শনা থানাধীন পারকৃষ্ণপুর-মদনা ইউনিয়নের বড়বলদিয়া গ্রামে মর্মান্তিক সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনার পর থেকে ঘাতক কালাম উদ্দিন সহ পরিবারের লোকজন গ্রাম ছেড়ে পালিয়েছে। নিহতর লাশ উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। এ হত্যা ঘটনায় দর্শনা থানায় কালামকে প্রধান আসামী করে দর্শনা থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।
স্থানীয় ও পরিবার সুত্রে জানাযায়,
দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা থানাধীন
পারকৃষ্ণপুর-মদনা ইউনিয়নের বড়বলদিয়া গ্রামের মাঝপাড়ার শুকুর আলীর ছেলে শফিকুল ইসলাম শফিক বছর দুয়েক আগে গ্রামের বগা নামের জৈনক ব্যাক্তির নিকট হতে আড়াই কাঠা জমি ক্রয় করে। সে ক্রয়কৃত জমি গ্রামের মৃত আমির হোসেনের ঘর জমাই কালামের দখলে রয়েছে। এ জমি নিয়ে উভয় পরিবারের সাথে প্রায়,প্রায় ছোট-খাটো বিরোধ লেগে থাকতো। তা নিয়ে গতকাল শুক্রবার উভয় পরিবারের মধ্যে বসে সমস্যার সমাধান হয়। সামনে বাংলা মাসের চৈত্র সে দখলকৃত জমি ছেড়ে দেবে। সে কথা মেনে নেয় শফিক। এ কথা মেনে নেওয়ার পর ওইদিন গতকাল শুক্রবার বিকাল সোয়া ৫টার দিকে গ্রামের বাজার হতে শফিকুল ইসলাম শফিক নিজ বাড়ি ফিরছিল। সে বাড়ি ফেরার সময় পথিমধ্যে কালামের বাড়ির নিকট পৌছালে কামাল হোসেন, আব্দুস ছাত্তারের ছেলে কালামের ঘর
জামাই সুলতান (৪২) সহ তার পরিবারের লোকজন শফিকুলের পথ গতিরোধ করে বিভিন্ন প্রকার হুমকি-ধামকি সহ অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। এসমস্ত কথাবার্তা নিয়ে উভয়ের মধ্যে কথাকাটা কাটির একপর্য়ায় কালাম সহ তার পরিবারের লোকজন
শফিকুল ইসলাম শফিকের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। ঘর জামাই কালাম উদ্দিন একটি বাঁশ দিয়ে শফিকের মাথায় আঘাত করে। এতে রক্তাক্ত জখম হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পরে শফিক। এসময় প্রতিবেশী সহ স্থানীয় লোকজন দৌড়ে ঘটনাস্থলে পৌছে শফিককে মৃত অবস্থায় মাটিতে পড়ে থাকতে দেখতে পাই। এদিকে শফিকের মৃত্যুর খবরে হামলাকারীরা স্বপরিবারে বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে। এ সংঘর্ষের ঘটনায়
নিহতর সহদর বিল্লাল হোসেন ও রক্তাক্ত জখম হয়েছে ঘাতক হত্যাকারী ঘরজামাই কালাম উদ্দিন।
ঘটনার খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছায় দর্শনা থানার পুলিশ। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন দর্শনা থানার অফিসার ইনচার্জ মাহাব্বুর রহমান কাজল, পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত (ওসি) শেখ মাহবুর রহমান সহ থানার অফিসার এবং সঙ্গীয় ফোর্স। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ নিহতর লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য দর্শনা থানা হেফাজতে রেখেছে। আজ শনিবার লাশের ময়না তদন্তর জন্য পাঠানো হবে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে। এ হত্যা কান্ডের সাথে জড়িত মর্জিনা নামের এক নারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এবিষয়ে দর্শনা থানায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
দর্শনা থানার অফিসার ইনচার্জ মাহাব্বুর রহমান কাজল জানান, জমিজমা সংক্রান্ত বিষয়ে কালাম উদ্দিনকে হত্যা করা হয়েছে। এ হত্যাকান্ডের ঘটায় জড়িত একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। হত্যা ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।