দর্শনা অফিস:“ ইক্ষু কেন চক্ষুশূল? এই শিল্পও কৃষক কূল, কৃষক শ্রমিক বাঁচলে দেশ, বাতিল করুন সিদ্ধান্তাদেশ” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে সারা দেশের ১৫ টি চিনিকলের ন্যায় দর্শনায় রাষ্টিয় চিনিকলসমূহ বন্ধের প্রতিবাদে ও ৫ দফা দাবী বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বাংলাদেশ চিনিকল ফেডারেশন ও আখচাষী ফেডারেশনের কেন্দ্রিয় কর্মসূচী দেওয়া  মানববন্ধন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বেলা ১১টায় দর্শনা-মুজিবনগর সড়কের দর্শনা রেলবাজার বটতলায় প্রধান সড়কের দু’ধারেপ্রায় ১ কিলোমিটার দর্শনার আপামর জনতা শান্তিপূর্ন পরিবেশের মধ্য দিয়ে মানববন্ধন পালন করেন। কেরুজ শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন ও চিনিকল আখচাষী কল্যান সমিতির আয়োজনে মানববন্ধনে একাত্বতাবোধ জানায়, দর্শনার সকল রাজনৈতিক দল, মুক্তিযোদ্ধা সংগঠন, বিভিন্ন  সামাজিক উন্নয়ন সংগঠন, দর্শনা প্রেসক্লাব, বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠন, বাজার কমিটি, মটরশ্রমিক ইউনিয়ন, বনিক সমিতি। এসকল সংগঠনের প্রতিনিধিত্বশীল ব্যাক্তিদের নিয়ে রেল বাজার বটতলা চত্বরে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। কেরুজ শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি ও চিনিকল ফেডারেশনের সহ-সাধারন সম্পাদক তৈয়ব আলীর সভাপতিত্বে মানববন্ধন ও আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন, চু্য়াডাঙ্গা জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক ও দামুড়হুদা উপজেলা আ.লীগের সাধারন সম্পাদক মাহফুজুর রহমান মনজু, দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলী মুনসুর বাবু, দর্শনা পৌরসভার মেয়র মতিয়ার রহমান, বাংলাদেশ কমিউনিষ্ট পার্টির চুয়াডাঙ্গা জেলা সভাপতি এড. শহিদুল ইসলাম, জাসদ (আম্বিয়ার) কেন্দ্রিয় নেতা আনোয়ারুল ইসলাম বাবু, চুয়াডাঙ্গা জেলা ওয়ার্কাস পার্টির সভাপতি সৈয়দ মজনুর রহমান, দামুড়হুদা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাচাই কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা রুস্তম আলী, কেরুজ শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক মাসুদুর রহমান। মানববন্ধন ও আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতেগড়া চিনি শিল্প সরকারের সিদ্ধান্তের কারনে আরো সমস্যায় নিমজ্জিত হচ্ছে। বিভিন্ন ভুল সিদ্ধান্ত চিনিকল শ্রমিক-কর্মচারীদের ওপর চাপিয়ে চিনিকল বন্ধের পায়তারা করছে একটি মহল। সরকারের শিল্প মন্ত্রানলয়ের ও কর্পোরেশনের আমলাদের এ চিনিশিল্প বন্ধের পরিকল্পনা বাতিল না করা পর্যন্ত আরও বৃহত্তর আন্দোলনের ডাক দেওয়া হবে। তাছাড়া স্ব স্ব এলাকার চিনিশিল্পের উপর ঐ এলাকার আর্থ সামাজিক উন্নয়ন, অবকাঠামো উন্নয়নসহ কয়েক লক্ষ পরিবার নির্ভরশীল। সরকারের এ সিদ্ধান্ত বাতিল না করলে শ্রমিকরা বেকার হয়ে দারিদ্রতা বৃদ্ধি পেয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়া ব্যাপক ভাবে বাধাগ্রস্ত হবে।অনুষ্ঠিত ১ ঘন্টা ব্যাপী মানববন্ধনের জাহাঙ্গির আলম লুল্লুর প্রানবন্ত পরিচালনায় উপস্থিত থেকে আলোচনা করেন, জেলা পরিষদের সদস্য সিরাজুল ইসলাম, আখচাষী কল্যাণ ফেডারেশনের সভাপতি আ: হান্নান, সাধারণ সম্পাদক বারী বিশ্বাস, সহ-সভাপতি ওমর, শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সহ-সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, সহ-সাধারণ সম্পাদক খবির উদ্দিন, সাবেক সভাপতি হাফিজুল ইসলাম, শ্রমিক নেতা ফিরোজ আহম্মেদ সবুজ, দর্শনা গন উন্নয়ন গ্রহন্থাগারের পরিচালক আবু সুফিয়ান, সিএন্ডএফ ব্যবসায়ী আতিয়ার রহমান হাবু, ওয়েভ ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক জহির রায়হান, অনিবার্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের সভাপতি ফজলুর রহমান, সমাজ সেবক হাজী আকমত আলী, দর্শনা পৌর নাগরিক কমিটির আহবায়ক গোলাম ফারুক আরিফ, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আ.হান্নান ছোট, আ. মান্নান, দর্শনা পৌর যুবলীগের সাধারন সম্পাদক শেখ আসলাম আলী তোতা, কলেজ ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক তোফাজ্জেল হোসেন তপু, বনিক সমিতির পরিচালক হারুন-আর রশিদ, দর্শনা মটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক নাজিম উদ্দিন প্রমূখ।