স্টাফ রিপোর্টারঃ ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্যো দিয়ে ঢাকা ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্ট অ্যাসোসিয়েশন অব চুয়াডাঙ্গা ডুসাক কর্তৃক আয়োজিত মিলনমেলা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে চুয়াডাঙ্গায় অবস্থানরত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ও বর্তমান সকলের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণের মাধ্যমে যেন চুয়াডাঙ্গার রেডচিলি হোটেল ও রেস্তোরাঁ একখন্ড ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চত্বরে পরিণত হয়। সকলের উৎসাহে যেন ঈদের আগে আর এক ঈদ।

 

উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক আমিনুল ইসলাম খান। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত বক্তব্য রাখেন ডুসাকের প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও এনটিভির বিশেষ প্রতিনিধি আহমেদ পিপুল। এছাড়াও বিশেষ অতিথির বক্তব্য প্রদান করেন চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম, চুয়াডাঙ্গার কৃতিসন্তান ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার জাফর হোসাইন, চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম মালিক খোকন, চুয়াডাঙ্গা জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মাহফুজুর রহমান মঞ্জু, মালিক গ্রুপের ম্যানেজিং ডিরেক্টর হাফিজ মালিক বাবু, স্পেশাল ব্রাঞ্চের পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেন।

এছাড়াও স্বাগত বক্তব্য রাখেন চুয়াডাঙ্গা প্রেস ক্লাবের সভাপতি সরদার আল আমিন, সাধারণ সম্পাদক রাজিব হাসান কচি, সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক বিপুল আশরাফ, প্রথম আলোর জেলা প্রতিনিধি শাহ আলম সনি, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের সহযোগী অধ্যাপক মহসিন কবির, সহযোগী অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন, সহযোগী অধ্যাপক মাসুদ পারভেজ, উপপরিচালক অডিট অধিদপ্তর, মিল্টন হোসেন, মাগুরা জেলার লিগ্যাল এইড অফিসার শেখ ফরিদ, এ্যাসিসট্যান্ট রেভিনিউ অফিসার তরিকুল ইসলাম, সোনালী ব্যাংকের গোকুলখালি শাখার ব্যবস্হাপক ছানোয়ার হোসেন, ব্যাংকার আব্দুল কুদ্দুস, রিপন, মতিউর রহমান।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার, সাংবাদিক সমিতির সভাপতি নাজমুল হক স্বপন, এনটিভির জেলা প্রতিনিধি রফিকুল ইসলাম, ডুসাকের সাবেক সভাপতি হাসানুজ্জামান পলাশ, মোঃ নাজমুল হোসাইন সুজন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক শামীম হাসান মিজি, ইশতিয়াক বুলবুল পিয়াস, শফিকুল ইসলাম। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন ডুসাকের সাধারণ সম্পাদক মাউনজিরা বিশ্বাস সুরভী। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ডুসাকের সভাপতি রফিক উদ্দিন।

এই অনুষ্ঠানে ডুসাকের উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি কামনা করা হয় এবং ডুসাকের অগ্রযাত্রায় সকলে একত্রে কাজ করার অঙ্গীকার করা হয়। ঈফতারের আগে দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনা করে বিশেষ মোনাজাত পরিচালনা করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *