জীবননগর উথলি ও মনোহরপুরে স ও জের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ।। দেয়ালচাপায় এক ব্যক্তি গুরুতর আহত   

জীবননগর অফিস: আঞ্চলিক সড়কের দু’পাশে গড়ে ওঠা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান শুরু করেছে চুয়াডাঙ্গায় সড়ক ও জনপথ বিভাগ। তিন দিনের এই স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযানে দামুড়হুদা, দর্শনা উচ্ছেদ অভিযানের পর জীবননগরে কিছু অংশ অপসারণ করেছে স ও জ। গতকাল মঙ্গলবার বিকালে জীবননগর উথলি ও মনোহরপুর সড়কের দু’পাশে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে। উচ্ছেদ অভিযানে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের সার্বিক সহায়তা দিতে পুলিশ ফায়ার সার্ভিস ও বিদ্যুৎ বিভাগের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। উচ্ছেদ অভিযান চলাকালে সড়কের দুই ধারে অর্থ শতাধিক দোকান পাট বুলডোজার দিয়ে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়। বুলডোজার দিয়ে পাকা ইমারত ভাঙার সময় উপজেলার শিয়ালমারি গ্রামের এক ব্যক্তি দেয়ালচাপায় মারাত্মক আহত হয়েছে। ঘটনাস্থলে থাকা ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা তাকে উদ্ধার করে জীবননগর হাসপাতলে ভর্তি করে। আহত মিনা (৫০) উপজেলার উথলি ইউনিয়নের শিয়ালমারি গ্রামের রুস্তম আলীর ছেলে। জানা যায় , চুয়াডাঙ্গা সড়ক ও জনপথ বিভাগ আঞ্চলিক মহাসড়কের পাশে তাদের স্থাপনায় অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ করতে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে। টানা তিন দিনের এই অভিযানে একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস, বিদ্যুৎ বিভাগ ও সড়ক বিভাগের সদস্যরা অভিযানে অংশ নেয়। মঙ্গলবার বিকালে জীবননগর উথলী বাস স্ট্যান্ড মোড়েবুলডোজার দিয়ে অবৈধ সড়কের ধারে স্থাপনাগুলো গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়।শিয়ালবাড়ি মরে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের সময় পার্শ্ববর্তী দোকানে আসা মিনা (৫০) দেয়ালচাপায় রক্তাক্ত জখম হয়। ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে জীবননগর হাসপাতালে ভর্তি করে। এছাড়াও সড়ক ও জনপথ বিভাগের সদস্যরা মনোহরপুর বাসস্ট্যান্ডে সড়কের ধারে গড়ে ওঠা অবৈধ স্থাপনা বুলডোজার দিয়ে গুঁড়িয়ে দেয়।

চুয়াডাঙ্গায় সড়ক বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী অনুজ কুমার দে জানান, সড়ক বিভাগের জায়গায় করে ওঠা অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নেওয়ার জন্য গণবিজ্ঞপ্তি ও মাইকিং করা হয়েছে। যেসকল দখলদার অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নেয় নি তাদের বিরুদ্ধে উচ্ছেদ অভিযান অব্যাহত থাকবে। আজ বুধবার জীবননগর উচ্ছেদ অভিযান চলবে।