জীবননগর অফিস:জীবননগর শহরের এক টিন ব্যবসায়ী হিসাবে ২ হাজার টাকা গড়মিলের অভিযোগে দোকান ম্যানেজার খলিলূর রহমানকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যতন চালিয়েছে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের স্বত্ত্বাধিকারী হাজী সাইদুল হক ও তার ছোট ভাই সাইউল হক। নির্যাতনের পর ম্যানেজার খলিলুর রহমান(৫৫)কে রোববার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত দোকান ঘরের একটি কক্ষে অবরুদ্ধ রাখার তাকে পরিবারের কাছে তুলে দেন দোকান মালিক। নির্যাতন চালিয়ে ঘটনাটি কাউকে জানাতে নিষেধ করে তাকে শাসিয়ে দেয় দোকান মালিক। হতদরিদ্র পরিবারটি চাকরী হারানো ও মান সম্মানের ভয়ে কাউকে কিছু না বলে নিজ বাড়ীতে তাকে চিকিৎসা নিতে থাকে। তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় সোমবার সন্ধ্যায় পরিবারের সদস্যরা তাকে জীবননগর হাসপাতালে ভর্তি করে। নির্যাতীতার স্ত্রী বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ করলে সোমবার গভীর রাতে পুলিশ ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান হক মেশিনারীর স্বত্বাধিকারী হাজী সাইদুল হককে (৫৫) গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে।
নির্যাতনের শিকার পেয়ারাতলা গ্রামের খলিলুর রহমান বলেন, দীর্ঘ ৬ বছর যাবত হক মেশিনারী ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করে আসছি। রোববার সকালে আমি দোকানে খাতা- পত্রের হিসেব-নিকেশ করি। এ সময় দোকান মালিক হাজী সাইদুল হক ও তার ছোট ভাই সাইউল হক আমার কাছে আসে। তারা পাওনাদারদের নিকট থেকে আদায়কৃত টাকার মধ্যে ২ হাজার টাকা কম আছে বলে অভিযোগ তোলে। আমি তাদেরকে জানায় আমার বেতন বাবদ ৫শ’ টাকা আমার নামে খাতায় লিখে বাকী টাকা আপনাদেরকে দিয়েছি। কিন্তু তারা আমার কথা না শুনে বলেন আমাদের কাছে দেয়া টাকার মধ্যে ২ হাজার টাকা কম হচ্ছে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে আমাকে নানা ভাবে চাপ প্রয়োগের পর কাঠের বাটাম দিয়ে মারপিট শুরু করে। সেই সাথে আমাকে বদ্ধ ঘরে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত আটকিয়ে রেখে দফায় দফায় নির্যাতন চালায়। তাদের অমানবিক নির্যাতনে আমি জ্ঞান হারিয়ে ফেলি। পরে সন্ধ্যায় আমার স্ত্রীকে ডেকে এনে এ কথা অন্য কোথাও প্রকাশ না করার শর্তে বাড়ী পাঠিয়ে দেয়। আমার কলেজ পড়ুয়া কন্যার কথা চিন্তা করে এবং দোকান মালিক সাইদুল হকদের ভয়ে নির্যাতনের ঘটনাটি কাউকে না জানিয়ে বাড়ীতে চিকিৎসা নিতে থাকি। সোমবার সন্ধ্যায় আমার অবস্থা খারাপ হলে পরিবারের লোকজন জীবননগর হাসপাতালে ভর্তি করে।
জীবননগর থানা অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম বলেন, নির্যাতনের ঘটনা শোনা মাত্র পুলিশের একটি টিম হাসপাতালে ভিকটিমকে দেখার জন্য পাঠায়। ঘটনাটি খুবই নির্মম ও নিষ্ঠুর। ঘটনার সাথে জড়িত ব্যবসায়ী সাইদুল হককে রাতেই গ্রেফতার জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।