জীবননগরে বঙ্গবন্ধু উন্নয়ন ভাবনায় নারী আলোচনা সভায় পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম

বঙ্গবন্ধু সমগ্র জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করেছিলেন যেখানে নারী পুরুষের কোন বৈষম্য ছিলো না

জীবননগর অফিস: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী ও স্বাধীনতা সুবর্ণ জয়ন্তী উদ্যাপনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর উন্নয়ন ভাবনায় নারী বিষয়টিকে সামনে নিয়ে আলোচকরা বঙ্গবন্ধুর সুদূরপ্রসারী চিন্তা চেতনার পরিকল্পনা তুলে ধরেন। গতকাল মঙ্গলবার বিকাল ৪ টায় ওয়েভ ফাউন্ডেশন ও লোকমোর্চার আয়োজনে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে সভাটি অনুষ্ঠিত হয়।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশকে বিচ্ছিন্ন করার কোন সুযোগ নেই। অসম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়তে বঙ্গবন্ধু সমগ্র জাতিকে করেছিলেন ঐক্যবদ্ধ। সেখানে নারী পুরুষের মধ্যে ছিলোনা কোন বৈষম্য। আর নারী জাগরনের অন্যতম পথিকৃত ছিলেন বেগম রোকেয়া। বঙ্গবন্ধু স্বপ্ন দেখেছিলেন বাংলার প্রতিটি মানুষ মুক্তি পাক শোষণ বঞ্চনার হাত থেকে। আজ দেশে তার চিন্ত চেতনার বহি:প্রকাশ তারই কন্যা মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত দিয়ে বাস্তবায়তি হচ্ছে। তিনি বলেন, সমাজে বাল্য বিয়ে প্রতিরোধ করতে সরকারের সাথে ওয়েভ ফাউন্ডেশন ও লোকমোর্চা প্রশাসনের হাতে হাত মিলিয়ে যে কাজ করে যাচ্ছেন তা সত্যিই প্রশংসার দাবীদার। তিনি নারী উন্নয়নে সংগঠনের সকলকে আরো জোরালো ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।
উপজেলা লোকমোর্চার সভাপতি ও উথলী ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী হাফিজুর রহমান হাফিজ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস.এম মুনিম লিংকন, পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম ইশা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েশা সুলতানা লাকী, জীবননগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি সাইফুল ইসলাম, লোকমোর্চার সাধারণ সম্পাদক সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আবু. মো. আব্দুল লতিফ অমল, মনোহরপুর ইউপি চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন খান, রায়পুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ শাহ ও ওয়েভ ফাউন্ডেশনের সমন্বয়কারী কামরুজ্জামান যুদ্ধ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বাকা ইউনিয়ন লোকমোর্চার সভাপতি খলিলুর রহমান, রায়পুর ইউনিয়ন লোকমোর্চার সভাপতি সাজ্জাদ বিশ্বাস, উপজেলা লোকমোর্চার সহসভাপতি সালাহ উদ্দীন কাজল, উপজেলা লোকমোর্চার সহ সাধারণ সম্পাদক সাজেদা আক্তার, কেডিকে লোকমোর্চার সভাপতি দাউদ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক রফিউল আলীম, উথলী ইউনিয়ন লোকমোর্চর সাধারণ সম্পাদক সেলিম হোসেন,সীমান্ত ইউনিয়ন লোকমোর্চার সভাপতি ওসমান গণি, হাসাদাহ ইউনিয়ন লোকমোচার সভাপতি জসীম উদ্দীন জালাল, আন্দুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন লোকমোর্চার সভাপতি আব্দুল ওয়াদুদ ও জীবননগর লোকমোর্চার সমন্বয়কারী আব্দুল আলিম সজল। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা ও ইউনিয়ন লোকমোর্চার সদস্য, জীবননগর থানার পুলিশের কর্মকর্তা ও ওয়েভ ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তাবৃন্দ।