জীবননগরে কালবৈশাখী ঝড়ে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি

জীবননগর অফিস: জীবননগর উপজেলার ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া কালবৈশাখী ঝড়ে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। রোববার সন্ধ্যা ৬ টার সময় জীবননগর উপজেলার আন্দুলবাড়ীয়া, উথলী, বাকা, রায়পুর এবং সীমান্ত ইউনিয়নের নিশ্চিন্তপুর, কুলতলা, আন্দুলবাড়ীয়া, দেহাটি, মুক্তারপুর, মিনাজপুর, কাশিপুর, ডুমুরিয়া সেনেরহুদা ও উথলী গ্রামের উপর প্রচন্ড বেগে কাল বৈশাখী ঝড় আঘাত হানে। ঘন্টাব্যাপী এ কালবৈশাখী ঝড়ে উপজেলার উঠতি ভুট্টা, তামাক, বোরোধান, কলাক্ষেত, পেপে, সবজি ক্ষেত ও আমের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া ঝড়ে শতাধিক কাচা ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। ঝড়ের কারণে বিদ্যুৎ লাইন ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে বিদ্যুৎ সরবরাহ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। রাস্তার পাশের গাছের ডালপালা ভেঙ্গে ও বাঁশঝাড় উপড়ে রাস্তার উপর পড়ায় যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে।
ঝড়ের আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত উথলী গ্রামের কৃষক আরিফুল ইসলাম জানান, রোববার সন্ধ্যায় ঝড়ে তার দু’বিঘা বিঘা ক্ষেতের লাউয়ের মাচা ভেঙ্গে লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে। একই গ্রামের আফছার আলী জানান, ঝড়ে তার দু’বিঘা জমির কলাগাছ ভেঙ্গে দেড় লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে। ওই গ্রামের সজল আহম্মেদ জানান, তার দু’বিঘা জমির পেঁপে গাছ ভেঙ্গে লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে।
জীবননগর পল্লীবিদ্যুৎ সাব জোনাল অফিসের এজিএম মোহাইমিনুল জানান, ঝড়ের তান্ডবে জীবননগর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে বৈদ্যুতিক তার ছিড়ে পড়েছে। মেরামত না হওয়া পর্যন্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ সম্ভব হচ্ছেনা। মঙ্গলবার সন্ধ্যার মধ্যে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ সম্ভব হবে।
উপজেলা উপসহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষন কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম জানান, ঝড়ে বরো ধান,কলাগাছ,আম ও লাউয়ের ক্ষতি হয়েছে। মাঠ পর্যায়ে ক্ষয় ক্ষতির পরিমান যাচায়ের কাজ চলছে।
জীবননগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম মুনিম লিংকন বলেন, ঝড়ে কৃষকদের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।