ব্যক্তি মুজিবকে হত্যা করলেও তাঁর আদর্শকে হত্যা করা যায়নিঃছেলুন এমপি
স্টাফ রিপোর্টারঃজাতীয় শ্রমিক লীগ চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার আয়োজনে জাতীয় শোক দিবস ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা ও দোয়া মহাফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।
গতকাল বিকাল সাড়ে ৪টার সময় চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে এই আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।
আলোচনা সভা ও দোয়া মহাফিলে  প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি  জাতীয় সংসদের সাবেক হুইপ ও চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য  বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে ছেলুন এম পি বলেন, ব্যক্তি মুজিবকে হত্যা করা হলেও তাঁর আদর্শকে হত্যা করা যায়নি।
তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে খুনীরা মনে করেছিলো বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও আওয়ামী লীগ ধ্বংস হয়ে যাবে। কিন্তু আজকে প্রমান হয়েছে ব্যাক্তি মুজিবকে হত্যা করা হলেও তাঁর আদর্শকে হত্যা করা যায়নি।
তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর নির্দেশিত পথে আমরা ৯ মাস য্দ্ধু করে ১৬ ডিসেম্বর এই দেশ স্বাধীন করি। পরে ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু পাকিস্তান কারাগার থেকে মুক্তি লাভ করে স্বাধীন দেশে ফিরে আসেন এবং য্দ্ধু বিধ্বস্ত বাংলাদেশের দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। যখন অল্প সময়ে সকল সংকট মোকাবেলা করে দেশকে স্বাভাবিক অবস্থায় আনেন তখনই ৭৫ এর ১৫ আগস্টে তাঁকে সপরিবারে হত্যা করা হয়।
সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন আরো বলেন, আজকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে চলছে। বঙ্গবন্ধুর দু’টি স্বপ্ন ছিলো, একটি দেশের স্বাধীনতা, অন্যটি দেশকে ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত সোনার বাংলায় পরিণত করা। প্রথমটি তিনি করে গেছেন। কিন্তু দ্বিতীয়টি পূরণ করার আগেই তাঁকে হত্যা করা হয়। তাই বঙ্গবন্ধুর দ্বিতীয় স্বপ্নটি আমরা তাঁর কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাস্তবায়নের পথে এগিয়ে চলছি।
তিনি আরো বলেন, ৭৫ পরবর্তি সময়ে বঙ্গবন্ধুর নাম মুছে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছিলো। ১৫ই আগস্ট আমরা মাইক বাজাতে পারতাম না। মিলাদ পড়তে, কাঙ্গালী ভোজ করতে পারতামনা। ইতিহাস পরিবর্তনের চেষ্টা করেছিলো। কিন্তু শেখ হাসিনার সরকার রাষ্ট্র পরিচালনার দ্বায়িত্ব নেয়ার পর সকলের সামনে সঠিক ইতিহাস তুলে ধরা হয়েছে। তরুণ সমাজ আজকে বঙ্গবন্ধুকে জানতে শিখেছে।
 জাতীয় শ্রমিক লীগ চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সভাপতি  আফজালুল হক বিশ্বাস’র সভাপতিত্বে ও ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক সাবেক যুবলীগ নেতা আব্দুল কাদের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি’র বক্তব্য রাখেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খুস্তার জামিল,যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সাবেক পৌর মেয়র রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন, সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্সি আলমগীর হান্নান ও মুফতি মাসুদুজ্জামান লিটু বিশ্বাস,দপ্তর সম্পাদক এ্যাড.আবু তালেব বিশ্বাস পিপি।
আলোচনা সভায় আরো  বক্তব্য রাখেন  জাতীয় শ্রমিক লীগ চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রিপন মন্ডল,চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক আরেফিন আলম রঞ্জু, সাবেক যুবলীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম আসমান, হোটেল রেস্টুরেন্ট ও মিষ্টি বেকারীর কার্যকারী সদস্য মো. বাবুল শেখ, সহ-মহিলা বিষয়ক সম্পাদকিা ও বিএডিসি শ্রমিক নেতা মাজেদা খাতুন, জেলা শ্রমিক লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও পরিবহন বিভাগের নেতা মিরাজুল ইসলাম (নান্টু), সহ-সভাপতি আঃ ছালাম,  জেলা ট্রাক ট্রাংক লরী শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক মামুন-অর-রশিদ সহ প্রমুখ।
এছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রেজাউল করিম, সভাপতি মোহাইমেন হাসান জোয়ার্দ্দার অনিক,জাতীয় শ্রমিক লীগ চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সহ-সভাপতি আঃ মাজিদ ও শ্রী বিরাট কুমার বিশ্বাস, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম কেতু, কাছেদ আলী, সহ-সাধারণ সম্পাদক শেখ আরিফ হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আঃ গফুর, ছাইদুর রহমান, জুলিয়াছ আহমেদ (মিল্টু) ও এমদাদুল হক ইদু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মান্নান (মুন্না), প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শ্রী কৃষ্ণ পদ সাহা ও সহ- প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জাহাঙ্গির হোসেন, সহ-মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মাজেদা খাতুন, কার্যকারী সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান, জালাল উদ্দিন, বাবুল শেখ, শহিদুল ইসলাম, চুয়াডাঙ্গা রেলওয়ে শ্রকিক লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম, চুয়াডাঙ্গা উপজেলা শ্রমিক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি টোকন মিস্ত্রি, দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের  সাধারণ সম্পাদক শওকত আলী সহ সকল সেক্টরের শ্রমিক কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিতিতে অদ্য আলোচনা সভা ও দোয়া মহাফিল এর  পূর্ণতা লাভ করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *