দর্শনা দক্ষিণ চাঁদপুর মাঠে মাটির নীচে পুতে রাখা ফেন্সিডিল খোয়া!!

চোর সন্দেহে এক যুবককে পিটালো মাদক ব্যবসায়ীরা!! খোয়া যাওয়া মাদক সন্ধানে মাঠে আশা ও কালাম

 

দর্শনা অফিসঃদর্শনা দক্ষিণ চাঁদপুর গ্রামের মাঠে মাটির নীচে পুতে রাখা ফেন্সিডিল খোয়া যাওয়ায় চোর সন্দেহে এক যুবককে পিটালো মাদক ব্যবসায়ীরা। এতে করে লাহা নামের এক যুবক আহত হয়। আর খোয়া যাওয়া মাদকের সন্ধানে মাঠে নেমেছে আশা ও কালাম নামের মাদক ব্যবসায়ী। ঘটনাটি এলাকায় ব্যপক চাঞ্চাল্যর সৃস্টি হয়েছে।
জানাগেছে, দর্শনা দক্ষিণ চাঁদপুর গ্রামের শাপলা পার্কের পিছনের মাঠের মাটির নীচে মাদক ব্যবসায়ীদের পুতে রাখা ফেন্সিডিল খোয়া যায়। এ ফেনডিল চোর সন্দেহে গ্রামের মাঠপাড়ার ইসমাইল হোসেন ছোট’র ছেলে লাহাকে (২২) দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে জিম্মি করে তাকে বেধরক ভাবে পিটায় দর্শনা দক্ষিণ চাঁদপুর গ্রামের রেললাইনপাড়ার মৃত মতি শাহর ছেলে জিন্না, কালামের ছেলে সোহেল, একই এলাকার গ্যাঙ কোয়াটার পাড়ার রবিউল ইসলামের ছেলে সাদিক ও মল্লিকপাড়ার বিশারত মল্লিকের ছেলে মকলেছ। এতে করে মাদক ব্যবসায়ীদের পিটুনীতে লাহা মারাত্বক ভাবে আহত হয়।
গতকাল মঙ্গলবার রাত ৭টার দিকে দর্শনা শাপলা পার্কের পিছনে মাঠের মধ্যে এ মারধরের ঘটনা ঘটে।
স্থানীয়রা ঘটনার বিবরণে বলেন, শাপলা পার্কের পিছনে মাঠের মাটির মধ্যে ১০ পাতা ফেনসিডিল পুতে রাখা ছিল। সে ফেনসিডিল নাকি চুরি হয়ে গেছে। চুরি যাওয়া মাদক লাহা চুরি করেছে এমন সন্দেহে চাঁদপুর গ্রামের রেললাইনপাড়ার মৃত মতি শাহর ছেলে জিন্না, কালামের ছেলে সোহেল, একই এলাকার মল্লিকপাড়ার বিশারত মল্লিকের ছেলে মকলেছ ও গ্যাঙ কোয়াটার পাড়ার রবিউল ইসলামের ছেলে সাদিক তাকে মারধর করে আহত করে। এতে লাহা আহত হয়। তবে সাথে কিছু গাঁজাও খোয়া গিয়েছে বলে এমন কথা শুনছি।
এবিষয়ে আহত লাহা জানায়, আমি সন্ধার পর বাড়ির পার্শ্বে শাপলা পার্কের পিছনের মাঠে যায়। সেখানে আমাদের জমির কর্তৃনকৃত পড়ে থাকা ভূট্টা গাছে আগুণ ধরিয়ে বাড়ির উদ্দ্যেশে রওনা হয়। এসময় পথিমধ্যে গ্রামের মৃত মতি শাহর ছেলে জিন্না, কালামের ছেলে সোহেল, একই এলাকার গ্যাঙ কোয়াটার পাড়ার রবিউল ইসলামের ছেলে সাদিক ও মল্লিকপাড়ার বিশারত মল্লিকের ছেলে মকলেছ আমার গলাই দেশীয় অস্ত্র হাসুয়া দিয়ে আঘাত করা সহ আমাকে জিম্মি করে তাদের হারিয়ে যাওয়া ফেনসিডিলের ফেরৎ চাই। তাদের এমন কথা শুনার পর আমি তার প্রতিবাদ করি তোদের ফেনসিডিলের খবর আমি কি করে যানবো। একথা বলা মাত্রই আমাকে বেধম মারধর করে ও তাদের হাসুয়ার আঘাতে গলাই আঘাত প্রাপ্ত হয়ে কিছুটা রক্তাক্ত হই। এমন সময় সোহেলের পিতা কালাম ও মিটে শাহর ছেলে আশা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। তারা আমার মারধর দেখে কোন প্রকার প্রতিবাদ ছাড়ায় ঘটনা স্থল থেকে ফিরে আসে। পরে যানতে পারি মাঠের মধ্য পুতে রাখা ১০ পাতা অর্থাৎ ১২০ বোতল ফেনসিডিল চুরি হয়ে গেছে।
একটি সুত্রে জানা যায়, শাপলা পার্কের পিছনের মাঠে মাটির মধ্যে পুতে রাখা ফেনডিল চুরির ঘটনা ঘটে। আর সেই চুরি যাওয়া ফেনসিডিল উদ্ধারে সন্ধানে মাঠে নেমেছে কালাম ও মিটে শাহর ছেলে আশাদুল ওরফে আশা শাহ।
দর্শনা থানার অফিসার ইনচার্জ মাহাব্বুর রহমান কাজল বলেন, এমন ঘটনা আমার জানা নেই। তবে কেউ থানায় অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।