চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন কার্যালয়ে কোটি কোটি টাকার ওষুধ ক্রয়ে দুর্নীতির ঘটনায় তদন্ত করেছে স্বাস্থ্য অধিদফতরের তদন্ত কমিটি


স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গায় ২০১৯-২০ অর্থ বছরে করোনা ভাইরাস মহামারীতে ওষুধ ও এমএসআর দ্রব্যাদি না কিনে কোটি কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগের সত্যতা নিরূপনের জন্য তদন্ত করেছে স্বাস্থ্য অধিদফতরের তদন্ত কমিটি। গতকাল রবিবার সকাল ১০টায় চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন কার্যালয়ে আসে স্বাস্থ্য অধিদফতরের তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি। তদন্ত কমিটির প্রধান করা হয়েছে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. বিধান চন্দ্র ঘোষকে। কমিটির অন্য দুই সদস্যের নাম জানা যায়নি।
তদন্তের তিনদিন আগে গত ৩ জুন ওষুধ, এমএসআর প্রাপ্তির সকল নথি ও মজুদ বহি চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন কার্যালয়ে রোববার সকাল ১০টায় তলব করে চুয়াডাঙ্গা স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধানসহ সংশ্লিষ্টদের একটি চিঠি দেন তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক ডা. বিধান চন্দ্র ঘোষ।
চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, ‘২০১৯-২০ অর্থ বছরে করোনাভাইরাস মহামারীতে ওষুধ, এমএসআর দ্রব্যাদি না কিনে কোটি কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগের সত্যতা নিরূপনের জন্য গঠিত তদন্ত কমিটি আগামী ৬ জুন সকাল ১০ টায় তদন্ত কার্য সম্পাদনের জন্য চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জনের কার্যালয়ে যাবেন। আপনিসহ ও আপনার দফতরের ভাণ্ডার রক্ষকের উল্লেখিত তারিখ ও সময়ে সিভিল সার্জন কার্যালয় চুয়াডাঙ্গায় উপস্থিতি আশা করছি। ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরের ওষুধ ও এমএসআর সামগ্রী প্রাপ্তি সংক্রান্ত সকল নথি, মজুদ বহি সাথে আনার জন্য অনুরোধ করছি। ’
তদন্ত কমিটির প্রধান ডা. বিধান চন্দ্র ঘোষ সাংবাদিকদের সাথে তদন্ত বিষয়ে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি। এ বিষয়ে মন্তব্য করেননি চুয়াডাঙ্গা স্বাস্থ্য বিভাগের কোন কর্মকর্তাও।