সুজন মাহমুদ, ডিঙ্গেদহ প্রতিনিধি :চুয়াডাঙ্গা জেলা সদর উপজেলার খেজুরা গ্রামে এসিল্যান্ডের হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে বৃষ্টি খাতুন (১৬) নামে এক ছাত্রী।আজ  শুক্রবার দুপুরে সদর উপজেলার পদ্মবিলা ইউনিয়নের খেজুরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকারী চুয়াডাঙ্গার সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইশরাত জাহান জানান, পদ্মবিলা ইউনিয়নের হায়দারপুর গ্রামের নজরুল মালিতার পুত্র অপু এর সহিত একই ইউনিয়নের খেজুরা গ্রামের কালু মন্ডলের কন্যা বৃষ্টি খাতুনের বিয়ের আয়োজন চলছিলো। বরযাত্রীসহ আমন্ত্রিত অতিথিদের বরণে বিয়ে বাড়িতে সকল প্রস্তুতিও সম্পূর্ণ ছিল। পরে এলাকাবাসীর মাধ্যমে বাল্যবিয়ের খবর পেয়ে দুপুরে কনের বাড়িতে উপস্থিত হন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও চুয়াডাঙ্গার সদরের উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইশরাত জাহান। এসময় তিনি বাল্যবিয়ের সব আয়োজন বন্ধ করে দেন।পরে তিনি সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। এলাকাবাসীর উপস্থিতিতে নাবালক মেয়েকে প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেবেন না মর্মে ওই কন্যার বড় ভাইয়ের থেকে মুচলেকা আদায় করেন। বাল্যবিয়ের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি। এসময় সদর থানার এএসআই ইন্দ্রজিত ও তার সঙ্গীয় ফোর্স এবং ইউপি সদস্য  হাসানুজ্জামানসহ অত্র এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ  উপস্থিত ছিল।