চুয়াডাঙ্গা শহরের আরামপাড়ায় ড্রেনের নোংরা পানিতে এলাকা সয়লাবঃ সড়কের বেহাল দশা    
প্রতিকারের দাবিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সমালোচনার ঝড়ঃ মেয়রের হস্তক্ষেপ কামনা  
স্টাফ রিপোর্টারঃ চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার  ৯ নম্বর ওয়ার্ডের অবহেলিত একটি মহল্লার নাম ‘আরামপাড়া’।  নামে আরামপাড়া হলেও শান্তিতে নেই ওই এলাকার বাসিন্দারা। বহুদিন যাবত ওই এলাকায় রাস্তাঘাট ও ড্রেনেজ ব্যবস্থায় উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। পানি নিষ্কাশনের জন্য ড্রেনেজ ব্যবস্থা থাকলেও তদারকির অভাবে অবহেলিত ড্রেনের নোংরা ও আবর্জনা যুক্ত পানি উপচে পড়ে সড়কে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে।
বিগত পৌরসভা নির্বাচনে ৯ নম্বর ওয়ার্ডে ৪ বার যে ৩ জন কাউন্সিল নির্বাচিত হয়েছেন তারা প্রত্যেকেই আরামপাড়ার বাসিন্দা।
অত্র এলাকার মানুষের মাঝে দীর্ঘদিনের একটাই অভিযোগ , আরামপাড়ায় এতো জনপ্রতিনিধি থাকতেও নিজের এলাকায় তেমন কোন নজর দেয়নি কেউ।
গতকাল বুধবার সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, ড্রেনের নোংরা ও আবর্জনা যুক্ত পানি উপচে পড়ে সড়কে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে।
এলাকার মানুষ হাঁটাচলা করতে গেলেও সাবধানতা অবলম্বন করতে হচ্ছে। যদি নোংরা ও আবর্জনা যুক্ত পানি শরীরে নেগে নাপাক হয়ে যায়। এলাকার নামাজি ব্যাক্তিরা ওজু করে মসজিদে যাওয়ার সময় নোংরা পানি শরীরে নেগে নাপাক হয়ে যাচ্ছে। চুয়াডাঙ্গা একাডেমি মোড় হয়ে সরকারি কলেজ, মাছপট্রি ও রেলস্টেশনে সহজে যাতায়াত করতে অনেকেই ওই সড়কটিকে ব্যবহার করে থাকেন। প্রতিদিন হাজারো মানুষের পদচারণা ওই সড়ক দিয়ে।
গতকাল এ ধরনের ছবি সামাজিক গণযোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করলে অনেকেই নানা মন্তব্য করতে থাকে। ফেসবুকে পোস্ট দেয়া ওই ছবি ভাইরাল হলে দিনভর সেখানে সমালোচনার ঝড় বয়ে যায়।
এলাকার সচেতন মহলের দাবি, চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়র জাহাঙ্গীর আলম মালিক খোকন বিষয়টি নজর দিবেন। সেইসাথে অতি দ্রুত প্রতিকারের ব্যবস্থা নিবেন।