চুয়াডাঙ্গা জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভায় জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম
করোনা টেস্টের পরিমাণ বাড়ানোসহ স্বাস্থ্যবিধি মানাতে আগ্রহ সৃষ্টি করতে হবে


ষ্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার।
সভাপতির বক্তব্যে তিনি বলেন, চুয়াডাঙ্গায় চলমান লকডাউন আপাতত বন্ধ হচ্ছে না। সোমবার থেকে সারাদেশে লকডাউন। সে হিসেবে চুয়াডাঙ্গায় সরকারী নির্দেশনা মোতাবেক লকডাউন চলবে। কঠোরভাবে এই লকডাউনকে প্রতিপালন করানো হবে।
জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার আরও বলেন, স্বাস্থ্য বিভাগকে সহযোগীতা করা আমাদের নৈতিক দায়িত্ব। প্রশাসনসহ আমরা সকলেই স্বাস্থ্য বিভাগকে যেকোনো বিষয়ে সহযোগীতা করবো। সকলকে সম্মিলিতভাবে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে কাজ করতে হবে। জেলায় টেস্ট বাড়াতে হবে। টেস্টের পরিমাণ বাড়ানোসহ স্বাস্থ্যবিধি মানাতে আগ্রহ সৃষ্টি করতে হবে। অনেকের মধ্যেই করোনাভাইরাসের উপসর্গ থাকলেও তাঁরা পরীক্ষা করাচ্ছেন না। এতে আমাদারে স্বাস্থ্য ঝুকি বেড়ে যাচ্ছে। আমাদের বুঝতে হবে, পরীক্ষা করিয়ে কোয়ারেন্টেন থাকলে, সংক্রমণ ছড়ানোর সম্ভাবনা কমে যাবে। শেষ মুহুর্তে হাসপাতালে ছোটাছুটি করার আগে থেকে আমাদের সতর্ক থাকতে হবে।
তিনি আরও বলেন, লকডাউন মানাতে পুরো জেলায় তদারকি করবে জেলা প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। এসময় লকডাউনের প্রভাবে কর্মহীনদের মধ্যে সরকারিভাবে খাদ্য সহায়তা দেয়া হবে বলেও জানান জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার।
জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার আরও বলেন, জেলার সমস্ত পশু হাটগুলো বন্ধ করা হয়েছে। সকল পর্যটনকেন্দ্রও বন্ধ রাখার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। চায়ের দোকান পুরোপুরিভাবে বন্ধ রাখার জন্যও নির্দেশনা জারী করা হয়েছে। জেলার সব ধরনের প্রাইভেট কোচিং বন্ধ রাখারও ঘোষনা দেন তিনি।
জরুরী এ সভায় উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন চুয়াডাঙ্গার সিভিল সার্জন ডা. এএসএম মারুফ হাসান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আবু তারেক, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুল হক বিশ্বাস, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহাম্মদ সাদিকুর রহমান, জেলা তথ্য অফিসার আমিনুল ইসলাম, চুয়াডাঙ্গা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক একেএম মঈনুদ্দিন, সাংবাদিক শাহ আলম সনি, আহসান আলম, ইজিবাইক মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাজু প্রমুখ।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, চুয়াডাঙ্গা পৌরসবার মেয়র জাহাঙ্গীর আলম মালিক খোকন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মনিরা পারভীন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট সাজিয়া আফরিন, চুয়াডাঙ্গা-৬ বিজিবি’র ব্যাটালিয়নের সহকারি পরিচালক শেখ মোহা. ইমরান আলী, দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমান, জীবননগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুনিম লিংকন, আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার পুলক কুমার মন্ডল, ইসলামী ফাউন্ডেশনের উপপরিচালক এবিএম রবিউল ইসলাম, আনসার ও ভিডিপি সার্কেল চুয়াডাঙ্গার অ্যাডজুটেন্ট সাইফুল ইসলাম, সদর হাসপাতালে আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. এএসএম ফাতেহ্ আকরাম, চেম্বার অব কমার্সের সহসভাপতি নাসির আহাদ জোয়ার্দ্দার, দোকান মালিক সমিতির সহসভাপতি আব্দুল কাদের যোগলু, পৌর কাউন্সিলর মাফিজুর রহমান মাফিসহ কমিটির অনান্য সদস্যরা।