চুয়াডাঙ্গায় মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন:আজ ফাইনাল


একমাত্র খেলা-ধুলায় পারে যুবসমাজকে মাদক থেকে দূরে রাখতে:জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম

আহসান আলম: “মুজিববর্ষের অঙ্গীকার, মাদক করব পরিহার” এ প্রতিপাদ্য বিষয়টিকে ধারণ করে চুয়াডাঙ্গায় মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী-২০২১ উপলক্ষে দুইদিন ব্যাপি ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ৩ টায় চুয়াডাঙ্গার পুরানত স্টেডিয়াম মাঠে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা, আলমডাঙ্গা উপজেলা, দামুড়হুদা উপজেলা এবং জীবননগর এই চার উপজেলা নিয়ে নকআউট ভিত্তিতে এ টুর্নামেন্টের প্রথম দিনে দুটি খেলা অনুষ্ঠিত হয়। খেলায় আলমডাঙ্গা উপজেলা একাদশ ও চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা একাদশ জয়লাভ করে এবং এ দুটি দলের মধ্যে আজ বুধবার বেলা সাড়ে ৩ টায় একই মাঠে ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হবে।


চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসন, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে ফুটবল টুর্নামেন্ট উদ্বোধনের আগে সেখানে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। চুয়াডাঙ্গা যুবলীগের আহ্বায়ক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দারের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি নজরুল ইসলাম সরকার।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ছিলো সুখি-সমৃদ্ধশালী একটি সোনার বাংলা গড়ার। বাংলাদেশের উন্নয়নের অগ্রযাত্রাকে থমকে দিনে পাকিস্থানীর দোশররেরা বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যা করেন। আজ বঙ্গবন্ধু নেই কিন্তু তারই সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ আজ একটি উন্নয়নশীল রাষ্ট্রে পরিনত হয়েছে। এক সময় আমাদের দেশের খেলা-ধুলার মান খুবই খাপার ছিলো। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নেতৃত্বে দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকার সাথে সাথে খেলা-ধুলার মানও উন্নতির দিকে এগিয়ে চলেছে। এ সময় তিনি আরও বলেন, মুজিববর্ষে সকলকে মাদক পরিহারের অঙ্গীকার করতে হবে। একমাত্র খেলা-ধুলায় পারে যুবসমাজকে মাদক থেকে দুরে রাখতে। আমাদের যুবসমাজকে ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করতে খেলা-ধুলার বিকল্প নেই।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক শরিয়ত উল্লাহ বলেন, মাদকের ভয়াল থাবা থেকে আমাদের সন্তানদের দুরে রাখতে হবে। মাদক থেকে দুরে থাকতে হলে খেলা-ধুলার বিকল্প নেই। মাদকাশক্ত একটি সন্তান ওই পরিবারের অভিশাপ। একটি পরিবারকে ধ্বংশ করতে একজন মাদকাশক্ত সন্তানই যথেষ্ট। তাই অভিভাবকদেরও লক্ষ রাখতে হবে আপনার সন্তান কোথায় যায়, সে মাদকাশক্ত কিনা।
সভাপতির বক্তব্যে জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার বলেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যুবকদেরকে আলাদা ভাবে দেখতেন। আওয়ামী লীগকে সুশংগঠিত করতে বঙ্গবন্ধু যুবলীগ গঠন করেন। আজকের যুবক আগামী দিনের স্বপ্ন। এ সময় তিনি আরও বলেন, মাদকে ছেয়ে গেছে আমাদের দেশ। যুব সমাজকে মাদকের ভয়াভহতা থেকে দুরে থাকতে হবে। মাদক থেকে দুরে থাকতে খেলাধুলার বিকল্প নেই।
জেলা প্রশাসনের সহকারি কমিশনার হাবিবুর রহমানের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আবু তারেক। এ সময় উপস্থিত ছেলেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মনিরা পারভিন, এনডিসি আমজাদ হোসেন, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের পরিদর্শক আব্দুল্লাহ আল মামুনসহ জেলা প্রশাসনের অন্যান্য কর্মকর্তাগন ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।
আলোচনা সভা শেষে বেলুন ও ফেস্টুন উড়িয়ে এবং ফুটবলে কিক দিয়ে টুর্নামেন্টের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি নজরুল ইসলাম সরকার।
উদ্বোধনি দিনে প্রথম খেলায় আলমডাঙ্গা উপজেলা একাদশ বনাম জীবননগর উপজেলা একাদশ অংশগ্রহন করে। আলমডাঙ্গা উপজেলা একাদশ ২-০ গোলে জীবননগর উপজেলা একাদশকে পরাজিত করে। আলমডাঙ্গা উপজেলা একাদশের পক্ষে খেলার প্রথমার্ধ্বে গোল করে অনিক এবং দ্বিথীয়ার্ধ্বে গোল করে তরুন।
এদিকে, দিনের অপর খেলায় চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা একাদশ বনাম দামুড়হুদা উপজেলা একাদশ অংশগ্রহন করে। লেখার পূর্ণ সময় গোলশুন্য ভাবে অমিমাংশিত হওয়ার কারনে খেলা টাইব্রেকারে ভাগ্য নির্ধারন হয়। টাইব্রেকারে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা একাদশ ৪-৩ গোলে দামুড়হুদা উপজেলা একাদশকে পরাজিত করে। আজ বুধবার বেলা সাড়ে ৩ টায় একই মাঠে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা এবং আলমডাঙ্গা উপজেলা একাদশের মধ্যে ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হবে।
এ ছাড়া উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা মার্কেটিং অফিসার শহিদুল ইসলাম, চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কামরুজ্জামান চাঁদ, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি মাহাবুল ইসলাম সেলিম,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সালাউদ্দীন বিশ্বাস মিলন, নির্বাহী সদস্য আব্দুল মালেক,রায়হান উদ্দীন, মহসিন রেজা,মমিন খান,রাশেদুল ইসলাম, মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের আহবায়ক কমিটির সদস্য আসাবুল হক, ফুটবলার তরিকুল ইসলাম তরু, মুরাদ ফেরদৌস প্রমুখ।