চুয়াডাঙ্গায় জাতপাতের নামে পবিত্রতার কথা বলে নববধুর শরীরে বাংলা মদ ছেটানোর ঘটনায় উভয়পক্ষের দ্বন্দের অবসান

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গায় জাতপাতের নামে পবিত্রতার কথা বলে নববধুর শরীরে বাংলা মদ ছেটানোকে কেন্দ্র করে উভয়পক্ষের দ্বন্দের অবসান ঘটেছে। গতকাল সোমবার রাতে চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশের হস্তক্ষেপে হরিজন সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দ এবং উভয় পরিবারের সাথে আলোচনার মাধ্যমে এ দ্বন্দের অবসান ঘটানো সম্ভব হয়েছে।
চুয়াডাঙ্গা সদর থানা উপপরিদর্শক ভবতোষ রায় বলেন, চুয়াডাঙ্গায় ডোমের ছেলে হয়ে বাশফোঁড় সম্প্রদায়ের মেয়েকে বিয়ে করার অপরাধে সমাজপতিদের হেনস্তার শিকার হয় এক নব দম্পতি। এমন অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা গতকাল রাতে উভয় পরিবারের সাথে ভৈঠকে মিলিত হই। এ সময় আমরা ছেলে-মেয়ে উভয়ের কথা শুনি। একপর্যায়ে প্রত্যেকে একেঅপরের দোষ শিকার করেন।
ওই সময় হরিজন সম্প্রদায়ের অভিযুক্তদের পক্ষ থেকে বলা হয়, আমরা নববধুর শরীরে বাংলা মদ ছিটাইনি। আমরা আমাদের নিয়ম অনুযায়ী বাংলা মদ মাটিতে ছিটিয়ে সেখানে তুলসি পাতা, গঙ্গাজল ও তামার বস্তু রেখে নববধুকে ওই মাটির উপর দিয়ে হাটতে বলি।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ জয়ভীম ছাত্র-যুব ফেডারেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক বিপ্লব ডোম, কুষ্টিয়া জেলা হরিজন ঐক্য পরিষদের সহসভাপতি সুলিন ডোম, সাংগঠনিক সম্পাদক হিরালাল ডোমসহ আরও অনেকে।
উল্লেখ্য, চুয়াডাঙ্গায় ডোমের ছেলে হয়ে বাশফোঁড় সম্প্রদায়ের মেয়েকে বিয়ে করার অপরাধে সমাজপতিদের হেনস্তার শিকার হয় এক নব দম্পতি। বিচারের নামে নববধুর গায়ে বাংলা মদ ছেটানোসহ ২০ দিনের মধ্যে সারাদেশের ডোম সমাজের লোকজনকে দাওয়াত করে খাওয়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতিরা। ঘটনাটি ঘটেছে চুয়াডাঙ্গার স্টেশন সংলগ্ন মাছের আড়তপট্টি এলাকায়। গতকাল সোমবার ওই দ্বন্দের অবসান ঘটলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *