চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় লকডাউন উপেক্ষা করে দোকান খোলার দাবীতে ব্যবসায়ীদের বিক্ষোভ সমাবেশ
আলমডাঙ্গা অফিস : আলমডাঙ্গায় ঢিলেঢালা ভাবে লক ডাউনের প্রথমদিন পালিত হয়েছে। প্রথমদিন জনসচেতনতা সৃস্টির লক্ষে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে প্রশাসন মাঠে নামে। এদিকে বৃহত্তর কাপড়পট্রির ব্যবসায়ীরা দোকান খোলা রাখার দাবীতে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে। কাপড় পট্রিতে তারা প্রশাসনের সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন।
জানা গেছে,করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ  শুরু হওয়ার সাথে সাথে ব্যাপক আকারে সংক্রমণ বৃদ্ধি পেতে থাকে। ফলে সরকার ৫ এপ্রিল থেকে১১ এপ্রিল পর্যন্ত সারা দেশে লক ডাউন ঘোষনা করে । গতকাল লক ডাউনের প্রথমদিন আলমডাঙ্গায় প্রশাসন মানুষকে সচেতন করার জন্য মাঠে নামেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার পুলক কুমার মন্ডলের নেতৃত্বে প্রশাসনের এটিমে আরো উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার ভূমি হুমায়ন কবির,থানার অফিসার ইনচার্জ আলমগীর কবিরসহ একদল পুলিশ ফোর্স। প্রশাসনের এ টিমটি বিভিন্ন মার্কেট পরিদর্শন করেন। এদিকে আলমডাঙ্গার বৃহত্তর কাপড় পট্রি ব্যবসায়ী সমিতির ব্যবসায়ীরা দোকান খোলা রাখার দাবীতে সরকারে বিধি নিষেধ অমান্য করে শহরে বিক্ষোভ মিছিল করে। বৃহত্তর কাপড়পট্রি ব্যবস্য়ী সমিতির সভাপতি হাজী গোলাম রহমান সিঞ্জুলের নেতৃত্বে মিছিলটি প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে কাপড়পট্রিতে এসে শেষ করে। এদিকে প্রশাসনের ওই টিম কাপড় পট্রিতে গেলে ব্যবসায়ীদের মিছিলের সামনে পড়েন । এ সময় ব্যবসায়ীরা স্বাস্থ্য বিধি মেনে দোকান খোলার দাবী জানান।এ সময় উপস্থিত ছিলেন আলমডাঙ্গা বৃহত্তরর কাপড়পট্রি ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি গোলাম রহমান সিঞ্জুল, সাধারণ সম্পাদক জেলা পরিষদের সদস্য আবু মুছা, সৈয়দ সাজেদুল হক মনি, হাজী আব্দুল খালেক, বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেনসহ প্রায় ২শ’ ব্যবসায়ী ও কর্মচারিরা অংশ গ্রহন করে। ব্যবসায়ীদের পক্ষে গোলাম রহমান সিঞ্জুল বলেন,লকডাউনে কাচা বাজার খোলা থাকবে,মুদিখানা খোলা থাকবে এতে যদি কোন ক্ষতি না হয়, তাহলে আমাদের  স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকান খোলার অনুমতি দেবার জন্য জোর দাবী জারাচ্ছি । তিনি আরো বলেন, আমাদের ঘর ভাড়া আছে,কর্মচারীর বেতন আছে, আমরা সবচেয়ে বেশিক্ষতি গ্রস্ত। আমরা কোন সাহায্য সহযোগিতা পাইনা। তাই প্রশাসনের কাছে অনুরোধ আমাদের দোকান খোলার অনুমতি দেওয়া হোক।
ব্যবসায়ীদের এই দাবীর বিষয়ে  আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা পুলক কুমার মন্ডল বলেন, করোনা সংক্রমণ রোধে সরকার যে নির্দেশনা জারি করেছে সেটা বাস্তবায়ন করার জন্য ব্যবসায়ীদের অনুরোধ করছি।  লকডাউনের এই সিদ্ধান্ত  সরকারি সিদ্ধান্ত এবং এটি সারা দেশের জন্যই।  আলমডাঙ্গার জন্য আলাদা কোন সিদ্ধান্ত নেই। তবে আপনারা যে দাবী জানাচ্ছেন সেটা জেলা প্রশাসক মহোদয়ের কাছে জানাবো।
আপনারা সরকারের নির্দেশনা মেনে চলুন। না মানলে আমরা আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বাধ্য হবো।