স্টাফ রিপোর্টারঃ চুয়াডাঙ্গার গহেরপুরে মাদরাসা শিক্ষক শহিদুল ইসলামকে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার রাতে রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহত শহিদুল ইসলাম (৪৫) চুয়াডাঙ্গা জেলা সদরের নবগঠিত গড়াইটুপি ইউনিয়নের গহেরপুর দক্ষিণপাড়ার মৃত রমজান আলীর ছেলে ও সড়াবাড়িয়া দাখিল মাদরাসার সহকারী শিক্ষক। ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে হাসপাতালে আহত শহিদুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন,  গতকাল রাত সাড়ে ৮ টার দিকে এলাকার একটা নারী ও শিশু নির্যাতনের বিষয় নিয়ে  ইউপি চেয়ারম্যান  শফিকুর রহমান রাজুর সাথে আলাপ সেরে বাড়ি ফিরছিলাম। এসময় একই গ্রামের মাঝের পড়ার  শামসুদ্দিনের ছেলে বদর উদ্দিন তাকে রড দিয়ে আঘাত করে এবং  রাম দা দিয়ে কুপিয়ে জখম করে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজন রক্তাক্ত অবস্থায় শহিদুল ইসলামকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে।তবে, মসজিদের কমিটি গঠন নিয়ে এ ঘটনা ঘটতে পারে বলে এলাকার একটি বিশ্বস্ত সুত্রে জানা গেছে।       সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মাহাবুবুর রহমান বলেন, ধারালো কিছু দিয়ে তার হাতে কোপ মারা হয়েছে। আমরা তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছি। রোগীর অবস্থা আশঙ্কামুক্ত।