গাংনী অফিসঃ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার কাজীপুর ইউপির অন্তর্গত বেতবাড়ীয়া গ্রামের শাহজী পাড়ার (হালসানা পাড়া) মৃত হাবিল শাহের ছেলে হারান শাহ’র বিরুদ্ধে সরকারী নির্দেশনা অমান্য করে মহল্লাবাসীর সংযোগ সড়ক (রাস্তার জমি) জবরদখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযোগের ভিত্তিতে উপজেলা নিবার্হী অফিসারের নির্দেশনা মোতাবেক সরেজমিনে ইউনিয়ন সহকারী ভূমি কর্মকর্তা (তহশীলদার) রাস্তা জবরদখল করার জন্য একাধিকবার নিষেধ করলেও দখল মুক্ত বা অপসারণ করেনি।

মহল্লাবাসীর লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে জানা গেছে, বেতবাড়ীয়া গ্রামের বাজারের অদূরে হালসানা পাড়া মূখী হেয়ারিং রাস্তার প্রবেশ মুখে হারান শাহ রাস্তার জমি দখল করে চাটাই ও টিন দিয়ে বেষ্টনী করে রাতের আঁধারে ইঁটের দেয়াল নির্মাণ করে জবরদখল করে রাখে। মহল্লাবাসীদরে চলাচলের রাস্তা অবরুদ্ধ করে জবরদখলের ব্যাপারে প্রতিবাদ করলেও হারান শাহ ও তার ছেলেরা গায়ের জোরে দখল করে নেয়।
এব্যাপারে হারান শাহর ছেলে হামিদুল ইসলাম বাবু জানান, আমরা রেলিং ও টিন দিয়ে ঘিরে সরকারী রাস্তা অস্থায়ীভাবে দখল করে রেখেছি সত্য, কিন্তু পাশের হারু বিশ্বাসসহ অনেকেই জায়গা দখল করে পাকা ঘর নির্মাণ করছে।তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হলে আমরাও বেড়া সরিয়ে নেব।শুধু রাস্তার মুখে নয় কমপক্ষে ১০০ মিটার রাস্তা অনেকে দখলে রেখেছে।সবগুলো দখল মুক্ত করা হোক। নইলে আমরা ছাড়বো না।
একই সাথে হারান শাহ’র জমির বিপরীত পাশের্ব প্রতিবেশী মৃত হোসেন বিশ্বাসের ছেলে হারু রাস্তার জমি সংলগ্ন জায়গায় পাকা দালান ঘর নির্মাণ করছে। মহল্লাবাসীর চাপে হারু বিশ্বাস তার নির্মাণাধীন ঘরের বারান্দা নির্মাণ কাজ বন্ধ করে রাখেন।

গ্রামের সাবেক মেম্বর জমিরউদ্দীন এ প্রতিবেদককে জানান,গ্রামের মহলাবাসী সচেতন মহলের দাবির প্রেক্ষিতে হেয়ারিং রাস্তা দখলের প্রতিবাদ করা হয়েছে। এমনকি সামাজিকভাবে নিষেধ করা হলেও তা অগ্রাহ্য করায় লিখিত অভিযোগ দাখিল করা হয়। মহল্লাবাসী জানান, রাতের আঁধারে রাস্তার জমি জবরদখল হলে অদূর ভবিষ্যতে বাড়ী থেকে প্রধান সড়কে বের হতে পারবে না।তাই মহল্লাবাসীর দাবি,অবিলম্বে সরেজমিনে তদন্তপূর্বক জবরদখলকৃত জায়গা থেকে দখল কারীদের উচ্ছেদ করে এবং সরকারী নির্দেশনা অমান্য করায় দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ জানিয়েছেন।
এব্যাপারে গাংনী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মৌসুমী খানম জানান,গ্রাম বাসীর অভিযোগের ভিত্তিতে সরজেমিনে তদন্ত করে দখলকারীদের বার বার মৌখিক ভাবে নিষেধ করা হয়েছে।যদি রাস্তা মুক্ত না করে।তাহলে সরকারী রাস্তা দখল করার অপধারে দখল কারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।