কোন কোন সমস্যা দেখা দিলে বুঝতে হবে ভিটামিন ডি-র অভাব হয়েছে?

পশ্চিমাঞ্চল রিপোর্ট:প্রতিটা ভিটামিনেরই আলাদা আলাদা ভূমিকা আছে আমাদের শরীরে। কোনও একটির পরিমাণ কমে গেলেই নানা ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। যেমন ভিটামিন সি-র ঘাটতি হলে ঠান্ডা লাগা-সহ নানা ধরনের সমস্যা হতে পারে। ঠিক একই রকম ভাবে ভিটামিন ডি-র ঘাটতিতেও হতে পারে নানা সমস্যা।

ভিটামিন ডি-র ঘাটতি হয়েছে কি না, সেটা বোঝা সহজ নয়। ঠিক কোন কোন সমস্যা একসঙ্গে দেখা দিলে, বুঝবেন ভিটামিন ডি-র ঘাটতি হয়েছে? কখন রক্তে ভিটামিন ডি-র মাত্রা পরীক্ষা করাতে হবে? রইল তেমন কিছু লক্ষণের কথা।

সব সময় ক্লান্তি: কখনও কাজের উৎসাহ না পাওয়া, সব সময় ভয়ানক ক্লান্ত থাকা— ভিটামিন ডি-র অভাবের কারণে হতে পারে। এমন হলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

গাঁটে গাঁটে ব্যথা: শরীরের নানা জায়গায়, বিশেষ করে হাড়ে আর গাঁটে গাঁটে ব্যথা ভিটামিন ডি-র অভাবের কারণে হতে পারে। এমন হলেও চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে।

ক্ষত যাচ্ছে না: কোথাও কেটে গেলে বা ঘা হলে, তা যদি বহু দিনেও না শুকায়, বুঝতে হবে ভিটামিন ডি-র অভাব হয়েছে। এ ক্ষেত্রে মনে রাখা দরকার, রক্তে শর্করার পরিমাণ বেড়ে গেলেও এমন হতে পারে। ঠিক কোন কারণে ক্ষত শুকাচ্ছে না, তা রক্ত পরীক্ষা করেই বলা সম্ভব।

চুল পড়ে যাচ্ছে: প্রতি দিনই আমাদের অল্পস্বল্প চুল পড়ে। কিন্তু এই চুল পড়ার গতি যদি প্রচণ্ড বেড়ে যায়, তার পিছনে ভিটামিন ডি-র অভাব একটা কারণ হতে পারে।

সারা ক্ষণ মনখারাপ: অনেক সময় ভিটামিন ডি-র অভাবে অবসাদের মতো সমস্যা দেখা দেয়। এ জন্য মনোবিদরা অবসাদ কাটাতে অনেক সময় রোদে অল্প হাঁটাহাঁটির পরামর্শ দেন। এতে শরীরে ভিটামিন ডি-র উৎপাদন বাড়ে।

এই প্রতিটা সমস্যাই আলাদা আলাদা কারণে দেখা দিতে পারে। কিন্তু যদি সব ক’টি সমস্যা একসঙ্গে দেখা দেয়, তা হলে বুঝতে হবে ভিটামিন ডি-র অভাব হয়েছে। সে ক্ষেত্রে চিকিৎসকের সঙ্গে দ্রুত যোগাযোগ করে রক্ত পরীক্ষা করিয়ে নেওয়া ভাল।