পশ্চিমাঞ্চল অনলাইন মনিটর:সাম্প্রতিক সময়ে থাইল্যান্ডের ক্ষমতাসীন সরকার ও রাজতন্ত্রের অবসানের দাবিতে রাজপথে নেমেছে সাধারণ মানুষ। এরই ধারাবাহিকতায় ব্যাংককে আন্দোলনরত গণতন্ত্রপন্থী বিক্ষোভকারীদের মুখোমুখি পড়েছেন রাজা মহা ভাজিরালংকর্ন।

বিবিসি বলছে, দেশে ফিরে বুধবার রাজদম্পতি এক অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে আন্দোলনকারীদের অবরোধের মুখে পড়েন তারা। যদিও এ যাত্রা বাধা না দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিলেও কথা রাখেনি আন্দোলনকরীরা।

খবরে বলা হয়, দেশটির বর্তমান রাজা মহা ভাজিরালংকর্ন এবং দেশটির বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে অংশ নিয়েছেন অসংখ্য মানুষ। এসময় তারা রাজার ক্ষমতা হ্রাস এবং প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ করার আহ্বান জানান।

আন্দোলনরত বিক্ষোভকারীদের পিছে ঠেলে দেয় দেশটির পুলিশ। এরপরও আন্দোলন চালিয়ে গেছেন গণতন্ত্রপন্থী বিক্ষোভকারীরা। তারা তাদের তিন আঙ্গুলের স্যালুট প্রদর্শন করেছেন, যা আন্দোলনেরই একটি অংশ হিসেবে দেখছে বিবিসি।

গত কয়েকমাস ধরে চলা বিক্ষোভ বুধবারের ওই ঘটনায় আরও বেগবান হয়েছে। খবরে বলা হয়, দেশে ফিরে রাণীকে সঙ্গে নিয়ে যাওয়ার সময় আন্দোলনরত গণতন্ত্রপন্থীরা চিৎকার করে করে তিন আঙ্গুল তুলেছিল। যা একটি গেমস থেকে বিদ্রোহমূলক সংকেত ও একতা প্রতীক হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে।

জানা যায়, বর্তমান রাজা ভাজিরালংকর্ন ২০১৬ সাল থেকেই দেশটির ক্ষমতায় আছেন। রাজা ভাজিরালংকর্নের অধিকাংশ সময়ই কাটে জার্মানিতে। কেন তিনি সেখানে দীর্ঘ সময় কাটান তার কোনো ব্যাখ্যা কারও জানা নেই। যদিও পাপারাজ্জিরা কখনও হয়তো জার্মানিতে রাজার বিলাসবহুল জীবন যাপনের কিছু ছবি প্রকাশ করতে সক্ষম হন।