আলমডাঙ্গায় প্রতারণা করে জমি রেজিস্ট্রি করে নেওয়ার অভিযোগে বড় ভাইয়ের বিরুদ্ধে ছোট ভাইয়ের সংবাদ সম্মেলন
আলমডাঙ্গা ব্যুরো: আলমডাঙ্গার হাউসপুরের এক যুবক ভাইয়ের বিরুদ্ধে সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন। প্রতারণা করে ছোট ভাইকে ঠকিয়ে নিজের নামে শহরের দোকান ও জমি রেজিস্ট্রি করে নেওয়ার অভিযোগে বড় ভাইয়ের বিরুদ্ধে এ সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।
 আলমডাঙ্গার হাউসপুরের আনসার আলীর ছেলে আব্দুল মান্নান গতকাল সোমবার সন্ধ্যায়  এ সংবাদ সম্মেলন করেন।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করা হয়েছে ২০০৪ সালে আব্দুল মান্নানের বয়স যখন ১৫/১৬ বছর সে সময় তার দাদা মরহুম নিয়ামুদ্দীন আব্দুল মান্নান ও তার বড় ভাই আব্দুল হান্নানকে শহরের একটি দোকান ও কিছু জমি রেজিস্ট্রি করে দেন। কলেজপাড়ার মামুনুর রশিদের বাসায় বসে সেই জমির দলিল সম্পাদন করেন।
সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়েছে বাদেমাজু গ্রামের দলিল লেখক ইউনুস আলীকে ম্যানেজ করে ওই সময় আব্দুল মান্নানের বড় ভাই আব্দুল হান্নান জমিদাতা দাদা কিয়ামদ্দীন ও ছোট ভাই আব্দুল মান্নানের অগোচরে কৌশলে ফাঁকি দিয়ে শুধু নিজের নামে দলিল করিয়ে নেন বড় ভাই ।  প্রতারণার এ কথা তারা গোপন রাখেন।
দাদা কিয়ামুদ্দীন বেঁচে থাকা পর্যন্ত নাতি আব্দুল হান্নানের এ প্রতারণার কথা কাউকে জানতে দেননি । ২০১৬ সালে ছোট ভাই আব্দুল মান্নান বিদেশ চলে যান। এক বছর আগে আব্দুল মান্নান দেশে ফিরে এসে শহরের জমিতে দোকান করতে চাইলে বড় ভাই ধুরন্ধর আব্দুল হান্নানের ১ যুগ আগের প্রতারণা সামনে চলে আসে।
 সে জানায় যে, দোকান ও শহরের জমি তার দাদা তাকে দিয়ে গেছেন।  ছোট ভাই আব্দুল মান্নানকে কিছুই দিয়ে যায়নি।  বড় ভাইয়ের এ প্রতারণার কথা শুনে ছোট ভাই মান্নান দিশেহারা হয়ে পড়েন।
এছাড়া, বড় ভাই আব্দুল হান্নানের সীমাহীন লোভের কারণে ছোট ভাইয়ের জীবন অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। বাড়ির জমি দুভাইয়ের সমান সমান হলেও বড় ভাই অর্ধেকের বেশি দখল করে বাড়ি করছে। এমনকি বাপের নামে ৬/৭ বিঘা জমি রয়েছে, তাও বাপকে পটিয়ে বন্ধক রেখেছেন।
বড় ভাই আব্দুল হান্নানের এ প্রতারণার প্রতিকার চেয়ে প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে তিনি এ সংবাদ সম্মেলন করেছেন বলে উল্লেখ করেছেন।