দর্শনা অফিসঃচুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় আড়াই কেজি ওজনের স্বর্ণসহ তিন জন আটক মামলার আসামী দর্শনা পৌর কাউন্সিলর বিল্লাল হােসেনকে (৩০) আটক করেছে পুলিশ। তিনি দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা পৌরসভার শ্যামপুর গ্রামের নূর ইসলামের ছেলে ও দর্শনা পৌরসভার ৮নং  ওয়ার্ডের বর্তমান নির্বাচিত কাউন্সিলর। গতকাল বৃহস্পতিবার ভোরে জীবননগর উপজেলার নারায়নপুর গ্রামের বিল্লাল হােসেনের শ্বশুর বাড়ী থেকে তাকে আটক করা হয়। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭ টার সময় আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলমগীর কবির আটকের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
পুলিশ জানায়, বুধবার দুপুর সাড়ে তিন টার দিকে কুষ্টিয়া-আলমডাঙ্গা সড়কের বন্ডবিল গেট এলাকায় একটি প্রাইভেটকার (ঢাকা মট্রা গ ১৭-৮৩৩২) থেকে চালক চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলা দর্শনা শ্যামপুরের নুর ইসলামের ছেলে বাপ্পী (৩০), চুয়াডাঙ্গা সদরের বনানীপাড়ার রিপন হােসেনের ছেলে সম্রাট হােসেন (৩৫) ও মাদারীপুর জেলার জালালপুরের বাবু হাওলাদারের ছেলে সুমন হাওলাদারকে (৩২) আটক করে। আটকের পর প্রাইভেটকারটি তল্লাশি করে সিটের নিচ থেকে তুলা ও স্পচ টেপ দিয়ে মােড়ানাে বিশেষ কায়দায় রাখা স্বর্ণালঙ্কারের ৬টি ব্যান্ডেল উদ্ধার করে পুলিশ। আড়াই কেজি স্বর্ণালঙ্কার সহ তাদের কাছ থেকে ব্যবহৃত মােবাইল ফােন ও নগদ টাকা জব্দ করা হয়। আটককৃত আসামীদের স্বীকারোক্তি মােতাবেক মামলার এজাহার ভুক্ত আসামী এই স্বর্ণালংকার চোরাচালানীদের হোতা দর্শনা পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বিল্লাল হােসেন সহ আরও অনকের নাম প্রকাশ করে।
এবিষয়ে আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলমগীর কবির জানান, বৃহস্পতিবার ভােরে আলমডাঙ্গায় আড়াই কেজি স্বর্ণ সহ তিন জন আটক মামলার এজাহার ভুক্ত দর্শনা পৌরসভার ৮নং  ওয়ার্ড কাউন্সিলর বিল্লাল হােসেনকে (৩০) জীবননগর উপজেলার নারায়নপুর গ্রামের তার শ্বশুর বাড়ী থেকে তাকে আটক করা হয়। আটকের পর তাকে অনেক জিজ্ঞাসাবাদ করে স্বর্ণালংকার চোরাচালানী বড় গডফাদারদেরও নাম বেড়িয়ে এসেছে। আটককৃতদের আদালতে সোপর্দ করে রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে।