স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার হাকিমপুর থেকে মনিরুল ইসলাম মনি নামের এক ব্যাক্তির লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে তার বাড়ির পার্শ্ববতী পুকুরপার থেকে মনির লাশ উদ্ধার করে তার পরিবারের লোকজন। নিহত মনিরুল ইসলাম মনি (৪০) আলমডাঙ্গা উপজেলার খাশকররা ইউনিয়নের হাকিমপুর মাঝেপাড়ার মৃত আকছেদ আলীর ছেলে। নিহত মনি দীর্ঘদিন ধরে পুলিশের সোর্স হিসাবে কাজ করে আসছেন বলে তার পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে।


নিহত মনির স্ত্রী নাছিমা খাতুন বলেন, গতকাল রাত ৯ টার দিকে তার স্বামী মনির মোবাইল ফোনে কেউ কল করে। তার পরপরই মনি বাইরে বের হয়ে যায়। বাড়ি ফিরতে দেরি হওয়ায় তাকে খুঁজতে বের হই। অনেক খোঁজাখুঁজির পর রাত ১১ টার দিকে বাড়ির পাশের একটি পুকুর পাড়ে তাকে পড়ে থাকতে দেখা যায়। পরিবারের লোকজন মনিকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়। হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
নাছিমা খাতুন আরও বলেন,তার স্বামী মনি দীর্ঘদিন ধরে পুলিশের সোর্স হিসাবে কাজ করে আসছে।
সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. আহসানুল হক জানান, হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে, মনির প্রতিবেশি মুঞ্জুর আলী জানান, রাত সাড়ে ১০ কি ১১ টা বাজে। এ সময় ঠাস করে কিসের যেন শব্দ হয়। বাইরে বের হয়ে দেখি মনি রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। আমরা তাকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
এদিকে, ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) জাহাঙ্গীর আলম বলেন, বাড়ির অদুরে একটি পুকুর পার থেকে মনিরুল ইসলাম মনি নামের একজনকে উদ্ধার হয়। হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মুলত দুর্বৃত্ত্বরা তাকে হত্যা করেছে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে। মনে হচ্ছে কেউ তার গলায় গামছা দিয়ে পেঁচিয়ে হত্যা করেছে।ময়নাতদন্তের জন্য মনির লাশ চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়।