আলমডাঙ্গা অফিস : আলমডাঙ্গার বন্ডবিল পৌর সিমানা পিলারের নিকট প্রাইভেটকার তল্লাশি করে বিপুল পরিমান সোনার গহনা উদ্ধার ও ৩জন আটকের  ঘটনায় বেশ কয়েকজরকে আসামী করে মামলা দায়ের করা হয়েছে। বাকিদের ধরতে পুলিশ ব্যাপক তৎপরতা শুরু করেছে।
জানা যায়, আলমডাঙ্গা থানা পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন সিমান্ত এলাকা থেকে স্বর্ণের একটি বড় চালান আসছে। সংবাদের ভিত্তিতে থানার অফিসার ইনচার্জ আলমগীর কবিরের নেতৃত্বে এসআই আব্দুল গাফ্ফার,এসআই তৌকিরসহ একদল পুলিশ ফোর্স পৌর এলাকার সিমানা পিলারের নিকট অবস্থান গ্রহণ করেন। বেলা আড়াইটার দিকে একটি প্রাইভেটকার দ্রুত ঘটনাস্থল দিয়ে বেরিয়ে যাবার চেস্টা করলে পুলিশ ব্যারিকেট দিয়ে ঢাকা মেট্রো গ- ১৭ ৮৩৩২ নয় প্রাইভেট কারটি থামিয়ে   তল্লাশি শুরু করে। এ সময় চালকের সিটের নীচ থেকে সোনার চেইন,বেসলেট,রুলিবালা,দুলসহ বিভিন্ন ধরনের সোনার গহনা উদ্ধার করে পুলিশ।
 আটক করা হয় মাদারিপুর জেলার জালালপুরের বাবু হাওলাদরের ছেলে সুমন হাওলাদার (২৯), চুয়াডাঙ্গা পৌরএলাকার ২ নং ওয়ার্ডের বনানিপাড়ার লিপন হোসেনের ছেলে সম্রাট হোসেন (২১) ও দর্শনা শ্যামপুর গ্রামের নূর ইসলামের ছেলে বাপ্পি হোসেন (৩০) কে আটক করে পুলিশ।
এ ছাড়াও আটক ব্যক্তিদের কাছ থেকে ৪টি মোবাইল ফোন, নগদ ১৬ হাজার ৯শ’ ৬০ টাকা জব্দ করে।  পুলিশ সুত্র জানায়, আটক ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদা তাদের গডফাদারসহ আরও কয়েক সহযোগির নাম জানিয়েছে।  এদের মধ্যে  দর্শনা শ্যামপুর, দর্শনা মোবারক পাড়া,  জীবননগর সেনেরহুদার, ঝিনাইদহের হরিনাকুন্ডু এলাকা ৯জন রয়েছে। এই নয়জন ছাড়াও অজ্ঞাত আরো ৪/৫ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাদের ধরতে পুলিশ তৎপরতা শুরু করেছে।