আলমডাঙ্গার পাইকপাড়ায় কচু ক্ষেতে ছাগল যাওয়াকে কেন্দ্র করে ধাক্কাধাক্কি ঃ এক ব্যক্তির মৃত্যু
আলমডাঙ্গা অফিস : আলমডাঙ্গার পাইকপাড়া চরপাড়ায় কচু ক্ষেতে ছাগল যাওয়াকে কেন্দ্র করে  আনোয়ার হোসেন গ্যাদা (৬০)  নামের এক ব্যক্তিকে ধাক্কা মেরে ফেলে দিয়ে মেরে ফেলার অভিযোগ উঠেছে। সোমবার বেলা ১০ টার দিকে গ্রামের মাঠের কচু ক্ষেতে এ ঘটনা ঘটে।  এ ঘটনায় পর অভিযুক্ত ব্যক্তি পালিয়ে গেলেও তার মা ফাতেমাকে আটক করেছে পুলিশ।
জানা গেছে,আলমডাঙ্গার পাইকপাড়া চরপাড়ার আনোয়ার হোসেন গ্যাদার স্ত্রী জাহানারা খাতুন তার ছাগল নিয়ে গ্রামের ঘর জামাই নুরুল ইসলামের ছেলে রনির কচু ক্ষেতের মধ্য দিয়ে যাচ্ছিল। এ সময় রনি ও তার মা ফাতেমা খাতুন  ক্ষিপ্ত হয়ে জাহানারা খাতুনের সাথে তর্কাতর্কি শুরু করে। এক পর্যায়ে জাহানারাকে ধাক্কা মেরে মাটিতে ফেলে দেয়। এ সংবাদ জানার পর জাহানারার স্বামী আনোয়ার হোসেন গ্যাদা বাড়ি থেকে ছুটতে ছুটতে মাঠের কচু ক্ষেতের নিকট যায়। রনি তার সাথেও অসদাচরণ করে । এক পর্যায়ে আনোয়ার হোসেন গ্যাদাকেও ধাক্কা দেয়। এ সময় গাছের সাথে ধাক্কা লেগে মাটিতে পড়ে মারাত্মক অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাকে উদ্ধার বাড়ি নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে তাকে হাসপাতালে নেবার পথে আনোয়ার হোসেন গ্যাদা মারা যান। তার মৃত্যুর সংবাদ শোনার পর পরই রনি বাড়ি থেকে পলাতক হয়। এ সময় রনির মাতা ফাতেমা খাতুনকে আটক করেছি পুলিশ।
 মৃত্যুর বিষয়ে অনেকেই জানান,আনোয়ার হোসেন স্ট্রোক মারা গেছেন। এদিকে অভিযোগ উঠেছে আনোয়ার হোসেন গ্যাদাকে ধাক্কা দেবার কারণেই তার মৃত্যু হয়েছে। এটাও হত্যার পর্যায়ে পড়ে।
পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য চুয়াডাঙ্গা মর্গে প্রেরণ করেছে।