আলমডাঙ্গা অফিস : আলমডাঙ্গার পাঁচ কমলাপুর গ্রামের ঘরজামাই সোহেলের বিরুদ্ধে এক শিশুকন্যাকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ঘুঘু ধরার কথা বলে চকলেট কেনার টাকা দিয়ে পরিত্যাক্ত একটি ঘরে নিয়ে গিয়ে ওই শিশুকন্যাকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে থানায় মামলা  দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনায়  অভিযুক্ত ধর্ষক সোহেলকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। জানা গেছে,আলমডাঙ্গার পাঁচকমলাপুর গ্রামের এক শিশুকন্যা ৪ নভেম্বর বিকেলে খেলা শেষে পাশের বাড়ি থেকে ফেরার পথে সোহেল তাকে ঘুঘু ধরার প্রলোভন দেখিয়ে চকলেট কেনার জন্য ৪ টাকা দিয়ে একটি পরিত্যাক্ত বাড়িতে নিয়ে  যায়। সেখানে সোহেল ওই  শিশুকে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ করা হয়। এ সময় ওই শিশু অসুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলে তার মা কি হয়েছে তা জানতে চাই। অসুস্থ ওই শিশু তার মায়ের কাছে ধর্ষণের বিষয়টি জানায়। শনিবার সকালে শিশুকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার ডাক্তারি পরীক্ষা করানো হয়। 
এ ঘটনায় ওই শিশুর চাচা বাদী হয়ে আলমডাঙ্গা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে  মামলা করেছেন । এদিকে থানা পূলিশ ধর্ষণের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার আসামী সোহেলকে  অভিযান চালিয়ে  গ্রফতার করেছে  ।সোহেল বাঁশবাড়িয়া গ্রামের মৃত মওলা বক্সের ছেলে।