আমার ওপর যেন আল্লাহর গজব পড়ে, যেন ধ্বংস হয়ে যাই: মামুনুল হক

পশ্চিমাঞ্চল অনলাইন ডেস্ক:গত দুই দিন ধরে হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক ও তার সঙ্গে থাকা এক নারীকে নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে। যদিও শুরু থেকেই মামুনুল হক দাবি করেছেন ওই নারী তার স্ত্রী।

বিষয়টি নিয়ে দেশব্যাপী তোলপাড় সৃষ্টি হওয়ার পর রবিবার (৪ এপ্রিল) জাতীয় সংসদে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘এদের চরিত্রটা কী তা বলতে চাই না। গতকালই আপনারা দেখেছেন। ধর্ম ও পবিত্রতার কথা বলে অপবিত্র কাজ করে ধরা পড়ে এরা।’

সংসদে প্রধানমন্ত্রী এমন কথা বলার পরপরই ফেসবুক লাইভে আসেন মামুনুল হক। সেখানে তিনি প্রধানমন্ত্রীর কথার প্রতিবাদ জানান। তিনি বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জাতীয় সংসদে দাঁড়িয়ে ভুল তথ্যের ওপর ভিত্তি করে যেভাবে আমার চরিত্রের ওপর কালিমা লেপনের চেষ্টা করেছেন, তাতে আমি অত্যন্ত মর্মাহত। আমি মনে করছি, তিনি আমার সম্পর্কে পুরোপুরি না জেনে, অসত্য তথ্যের ওপর ভিত্তি করে এসব মন্তব্য করেছেন।’

মামুনুল হক বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী কিংবা সরকারের কয়েকজন মন্ত্রী এবং একাধিক ব্যক্তি আমার চরিত্র নিয়ে এসব কথা বলেছেন। আমি স্পষ্ট ভাষায় বলছি, গতকাল (শনিবার) আমার সঙ্গে আমার স্ত্রী ছিল। শরিয়ত সম্মত উপায়ে সে আমার বৈধ স্ত্রী। তার সম্পর্কে আমি যে তথ্য দিয়েছি তা সত্য। আমার এই কথা যদি ভুল হয়ে থাকে বা আমি যদি মিথ্যা বলে থাকি তাহলে কোরআনের আয়াত অনুযায়ী আমার ওপর যেন আল্লাহর গজব পড়ে, আমি যেন ধ্বংস হয়ে যাই। আর যারা আমার ও আমার স্ত্রী সম্পর্কে গুজব ছড়াচ্ছেন, আমার চরিত্র নিয়ে মনগড়া কথা বলছেন, তারা যদি মিথ্যা বলে থাকেন তাহলে তাদের ওপর যেন আল্লাহর গজব নাজিল হয়। তারা মিথ্যাবাদী হয়ে থাকলে তাদের বংশ যেন নিরবংশ হয়ে যায়।’

এসময় তিনবার আল্লাহর কাছে মিথ্যাবাদীদের ওপর গজব নাজিল করার ফরিয়াদ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আল্লাহ আমি তোমাকে সাক্ষী রেখে বললাম, আমার সম্পর্কে যারা মিথ্যা ছড়াচ্ছে, তাদের ওপর তুমি গজব নাজিল কর।’

পরে তিনি বলেন, আমি যদি মিথ্যা বলে থাকি আমার ওপর গজব নাজিল হবে। আর যারা আমার সম্পর্কে এইসব ছড়াচ্ছে তারাও এমন ঘোষণা দিক। যদি তাদের সৎ সাহস থাকে, তাহলে তারাও প্রকাশ্যে এমন কথা বলুক।’